ফ্লিপকার্টে ড্রাইফ্রুট অর্ডার করে গ্রাহকের বাড়িতে এল আস্ত আধলা ইট!

ছবিঃ নিজস্ব

নিজস্ব প্রতিনিধি, টিডিএন বাংলা, নদীয়া: বর্তমান ব্যস্ত মানুষ অনেকেই অভ্যস্ত অনলাইন কেনাকাটায়। কিন্তু সেই কেনাকাটায় যদি কেউ প্রতারণার শিকার হোন তাহলে কি আর ভরসা থাকে! অবাক হচ্ছেন! আশ্চর্য হলেও এটাই সত্যি। বুধবার এমনই এক ঘটনা সামনে এল করিমপুর-২ ব্লকের থানারপাড়ার গমাখালী গ্রামে।

কিছুদিন আগে অনলাইনের মাধ্যমে ফ্লিপকার্টে এক কিলো ড্রাইফ্রুট অর্ডার করেন ওই গ্রামের এক ব্যবসায়ী। বুধবার যথারীতি ওই গ্রাহকের বাড়িতে মাল পৌঁছে দিতে আসেন ডেলিভারি বয়। ওই ডেলিভারি বয়কে নির্দিষ্ট ৯৫৯ টাকা পরিশোধও করে দেন গ্রাহক। কিন্তু প্যাকেট হাতে নিয়েই সন্দেহ জাগে। ঘটনাস্থলে উপস্থিত কয়েকজনের সামনে তিনি ডেলিভারি বয়কে বলেন প্যাকেটটি খুলতে। সেই সঙ্গে চলে মোবাইলে ভিডিও রেকর্ডিং। প্যাকেট খুলতেই চক্ষুচড়ক গাছ। কোথায় ড্রাইফ্রুট! কোম্পানির প্যাকেট থেকে বেরিয়ে আসে আস্ত আধলা একটি ইট। আর তাতেই বেজায় চটেছেন ওই গ্রাহক। নাম প্রকাশ না করার শর্তে ওই গ্রাহক বলেন, ‘কিছুদিন আগে ফ্লিপকার্টে এক কেজি ড্রাইফ্রুট অর্ডার করেছিলাম। আজ মাল হাতে পেয়ে সন্দেহ হয়। ডেলিভারি বয়ের সামনে প্যাকেট খুলতেই দেখি বেরিয়ে এল আধলা ইটটি।’

যদিও ফ্লিপকার্টের কাস্টমার কেয়ারে অভিযোগ জানিয়ে ওই গ্রাহকের সমস্ত টাকা ফেরত দিয়েছেন ওই ডেলিভারি বয়। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই ডেলিভারি বয় জানান, ‘গ্রাহকের বাড়ি মাল পৌঁছে দেওয়াই আমার দায়িত্ত্ব। প্যাকেটে কি আছে সেটা আমাদের জানার কথা নয়। আমার দু’বছরের কাজের অভিজ্ঞতায় এমন ঘটনা এই প্রথম। ঘটনাস্থল থেকেই সঙ্গে সঙ্গে বিষয়টি কোম্পানিকে জানিয়ে ওই গ্রাহকের সমস্ত টাকা ফেরত দেওয়া হয়েছে।’

উল্লেখ্য, বর্তমানে অনলাইন কেনাকাটার ফলে দোকানদারদের ব্যবসায় ভাঁটা পড়েছে অনেকটাই। কম বেশি এমন অভিযোগ গ্রাম থেকে শহর সব ব্যবসায়ীর। অনলাইন কেনাকাটায় জনপ্রিয়তার পাশাপাশি নানান ভাবে বাড়ছে অনলাইন প্রতারণাও। সাধারণ মানুষকে ফাঁদে ফেলতে নানান উপায় অবলম্বন করছে প্রতারকরা। আর সাধারণ মানুষও তাদের সেই পাতা ফাঁদে পা দিয়ে খুইয়ে ফেলছেন কষ্টের জমানো অর্থ। এবার এমন ঘটনা প্রকাশ্যে আসতে এবার হয়তো অনেকেই সচেতন হবেন।