ট্র্যাক্টরের পর এবার সাইকেলে সংসদে রাহুল, বিজেপি-বিরোধীদের সঙ্গে ব্রেকফাস্ট মিটিং কং নেতার

টিডিএন বাংলা ডেস্ক : পেগাসাস ইস্যুতে সংসদে ঐক্যবদ্ধ লড়াইয়ের জন্য বিরোধীদের নিয়ে বৈঠক করলেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধি। কনস্টিটিউশন ক্লাবে ব্রেকফাস্টের পর শুরু হয় রণকৌশল চূড়ান্ত করার কাজ। জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে এদিন সকালে রাহুলের বৈঠকের পরই সাইকেলে চেপে সংসদ ভবনের দিকে যান কংগ্রেস ও অন্যান্য বিরোধী দলের সাংসদরা। এর আগে কৃষি বিলের প্রতিবাদ জানাতে ট্রাক্টরে চেপে সংসদে গিয়েছিলেন রাহুল।
কংগ্রেসের একশো জন সাংসদ ছাড়াও তৃণমূল কংগ্রেস, সিপিআইএম, সিপিআই, শিবসেনা, এনসিপি, আরজেডি, এসপি-র মতো বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোর সাংসদরাও উপস্থিত ছিলেন এই বৈঠকে। এছাড়াও JMM, JKNC, IUML, RSP, KCM, TMC-এর নেতারাও উপস্থিত ছিলেন এই বৈঠকে।
পেগাসাস, কৃষি আইন সহ একাধিক ইস্যুতে বিজেপির ওপর চাপ বাড়াতে সংসদের বাইরে মক পার্লামেন্টের পরিকল্পনা নিয়েছেন বিরোধী সাংসদরা। সেই বিষয়ে আলোচনার জন্যই মঙ্গলবার এই প্রাতঃরাশ বৈঠক ডাকা হয়েছিল। বৈঠকে রাহুল জানিয়েছিলেন, বিভিন্ন বিষয়ে সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে সাইকেল চালিয়ে সংসদে যাবেন তিনি। সেইমতো এই বৈঠকের পর তিনি ও আরও একাধিক সাংসদ সাইকেল চালিয়ে সাংসদে যান।
এই বৈঠকে বিজেপি-আরএসএসের বিরুদ্ধে সমস্ত বিরোধীদের এক হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন সাংসদ রাহুল। নিজের ট্যুইটারে এই বার্তা দিয়েছেন তিনি। বৈঠকের ছবি ট্যুইটারে দিয়ে তিনি লিখেছেন – “একমাত্র অগ্রাধিকার – আমাদের দেশ, আমাদের দেশবাসী।”
তবে তাৎপর্যপূর্ণ বিষয় হল, আপ এবং বিএসপি এই বৈঠকে উপস্থিত ছিল না। এপ্রসঙ্গে আপ সাংসদ সঞ্জয় সিং জানিয়েছেন, “যোগ দিয়েছি কী দিইনি সেটা গুরুত্বপূর্ণ নয়। সংসদে আলোচনা শুরু হলেই আমরা কৃষকদের সমর্থন করবো এবং ফোনে আড়িপাতার বিষয়টি নিয়েও সরব হবো।”
অন্যদিকে এদিন সকালে বিজেপি সাংসদদের একটি বৈঠকে নরেন্দ্র মোদি সব বিরোধী দলের ওপর ক্ষোভ প্রকাশ করেন। সংসদ মুলতুবি হওয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘এটা সংদের অপমান, সংবিধানের অপমান, গণতন্ত্রের অপমান, মানুষের অপমান।’