উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে পারে ২০ অক্টোবরের পর

প্রতীকী ছবি

টিডিএন বাংলা ডেস্ক : পুজোর আগে উপনির্বাচন নয়। শুক্রবারই পশ্চিমবঙ্গ সহ পাঁচটি রাজ্যের নির্বাচন এবং উপনির্বাচন নিয়ে বৈঠক হওয়ার কথা ছিল। এদিন দিল্লিতে নির্বাচন কমিশনের ফুল বেঞ্চ বসার কথার ছিল। কিন্তু সেই বৈঠক বাতিল হয়েছে বলেই সূত্রের খবর। কবে এই বৈঠক হবে সেটা এখনও জানানো হয়নি।

সব মহল থেকে মতামত সংগ্রহের পালা শেষ। বকেয়া উপনির্বাচন নিয়ে নিজেদের মধ্যে আলোচনার জন্য শুক্রবার কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশনের বৈঠকে বসার কথা ছিল। কিন্তু তা ভেস্তে যায়।নির্বাচন কমিশন সূত্রে খবর, ১৫ সেপ্টেম্বরের পর পশ্চিমবঙ্গের উপ- নির্বাচন ঘোষণা করা হতে পারে। সম্ভবত উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে ২০ অক্টোবরের পর। ঘটনা হল, যে সময় উপ-নির্বাচন হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে তখন একাধিক রাজ্যে উৎসবের মরশুম। ১০ অক্টোবর থেকে ২৪ অক্টোবর পর্যন্ত রাজ্য সরকার এবং সিইও দফতরে পুজোর ছুটি থাকবে। দুর্গা পুজো শেষ করে কোনও এক সময় উপনির্বাচন করে দিতে চাইছে নির্বাচন কমিশন। সেক্ষেত্রে লক্ষ্মী পুজোর পর এবং কালীপুজোর আগে উপনির্বাচন সেরে নেওয়া হবে বলে কমিশন সূত্রে খবর। রাজ্য নির্বাচন কমিশন সূত্রে খবর, যদি ১০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে উপনির্বাচন ঘোষণা না হয়, তাহলে পুজোর পরেই নির্বাচন হবে সেটা ধরে নেওয়া যায়।

করোনা আবহে বাকি রাজ্যগুলির উপনির্বাচন করতে গিয়ে আগেই মাদ্রাজ ও কলকাতা হাইকোর্টের তোপের মুখে পড়তে হয়েছে কমিশনকে। এই পরিস্থিতিতে রাজ্যগুলির হাল জানতে আইসিএমআরের কাছে যাবতীয় তথ্য জানতে চেয়েছে কমিশন। বাংলায় ভবানীপুর সহ মোট ৭টি কেন্দ্রে উপনির্বাচন বাকি। ভোটের দাবিতে ইতিমধ্যেই চাপ বাড়িয়েছে রাজ্যের শাসকদল।অন্যদিকে অতিমারি পরিস্থিতিতে এখনই ভোট চাইছে না প্রধান বিরোধী দল বিজেপি। এই পরিস্থিতিতে এখন কমিশনের কর্তারা কী সিদ্ধান্ত নেন, এখন সেটাই দেখার।