রাজ্যের চার নেতা-মন্ত্রীকে গ্রেফতারের ঘটনায় তৃণমূল ও বিজেপি উভয়কেই দুষল সিপিএম

টিডিএন বাংলা ডেস্ক: নারদ কাণ্ডে সোমবার রাজ্যের চার নেতা-মন্ত্রীদের গ্রেফতার করে সিবিআই। এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে তৃণমূল ও বিজেপি দুই দলকেই দুষল সিপিএম। এদিন সিপিএমের রাজ্য কমিটির তরফে বিবৃতি দিয়ে বলা হয়েছে, “করোনা মহামারিতে যখন সারা দেশের মানুষের জীবন, জীবিকা অভূতপূর্ব বিপর্যয়ের সম্মুখীন তখনই সরকারের সীমাহীন অপদার্থতা চাপা দিতে মানুষের নজর অন্য দিকে ঘুরিয়ে দেওয়ার জন্যই এই সময়টা বেছে নেওয়া হয়েছে।”

পাশাপশি সিবিআইয়ের এই পদক্ষেপ “রাজনৈতিক উদ্দ্যেশ্য প্রণোদিত” বলেও উল্লেখ করা হয়েছে সিপিএমের বিবৃতিতে। তবে গ্রেফতারের প্রতিবাদ করলেও রাজ্যের শাসকদলকেই দুষছে সিপিএম। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “বিজেপি এই পরিস্থিতিকে ঘোরাল করেছে এবং তৃণমূল এই পরিস্থিতিতির সুযোগ গ্রহণ করতে তৎপর হয়ে উঠেছে।”

রাজ্যের মন্ত্রী ও বিধায়কদের গ্রেফতারির প্রতিবাদে তৃণমূল কর্মীদের জমায়েতের নিন্দাও করা হয়েছে সিপিএমের পক্ষ থেকে। বিবৃতিতে বলা হয়েছে,”এখন করোনা মোকাবিলাই প্রধান কাজ।” পাশাপশি বিজেপিকে উদ্দ্যেশ্য করে বলা হয়েছে,”বিজেপি-র মনে রাখা উচিত রাজ্যের মানুষ যাঁদের সরকারে চায় না, সদ্য তাঁরা স্পষ্ট ভাবে সেই রায় দিয়েছেন।”

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে উদ্দ্যেশ্যে সিপিএমের সতর্কবার্তা,”মুখ্যমন্ত্রীরও মনে রাখা উচিত যে, এই রায় বিজেপি-র বিরুদ্ধে হলেও তৃণমূলের দুর্নীতি এবং স্বৈরশাসনের পক্ষে ইতিবাচক রায় নয়।” পাশাপাশি তৃণমূলকে সিপিএমের পরামর্শ,”সঙ্ঘ পরিবার এবং বিজেপি-র ফ্যাসিবাদী কায়দায় শাসনের বিরুদ্ধে লড়াই চালাতে হলে নিজেদের দলের অভ্যন্তরে দুর্নীতি এবং বিরোধীশূন্য স্বৈরাচারের বিরুদ্ধে লড়াই চালাতে হয়।”