রোজগার চাই, চাকরি চাই; টুইটার ট্রেন্ডিংয়ের শীর্ষে প্রধানমন্ত্রীর কাছে বেকার যুবক যুবতীদের আবেদন হ্যাশট্যাগ “মোদি রোজগার দো”

দেবিকা মজুমদার, টিডিএন বাংলা: একদিকে দেশের বেহাল অর্থনীতি আর অপরদিকে করোনার প্রভাব। একাধিক সমীক্ষার রিপোর্ট অনুযায়ী দেশে বেকারত্বের পরিসংখ্যান দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। দেশের মোট বেকার চাকরিপ্রার্থীদের পরিসংখ্যানের তুলনায় অপর্যাপ্ত সরকারি চাকরির শূন্য পদ। প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগ সহ একাধিক চাকরির নিয়োগ প্রক্রিয়া ব্যাহত হয়েছে। ফলাফল প্রকাশ হয়নি এসএসসি সিজিএল ২০১৯-এর। ইঞ্জিনীরিং স্টুডেন্টরা অপেক্ষা করছেন আইআরএমএসের। এছাড়াও রেল ও অন্যান্য চাকরির নিয়োগ পরীক্ষার অপেক্ষায় রয়েছেন চাকরি প্রার্থীরা।

এরমধ্যে, গতবছর করোনার সংক্রমণ রুখতে জারি করা লকডাউন এর জেরে ইতিমধ্যেই চাকরি হারিয়েছেন বহু মানুষ। পরিযায়ী শ্রমিকদের অবস্থা আরো করুণ। ভিন রাজ্য থেকে নিজের রাজ্যে ফিরে এসে ফের বেকারত্বের শিকার তাঁরা। বস্তুত, বিভিন্ন রাজ্যের নির্বাচনের সময় বেকার যুবক যুবতীদের চাকরির আশ্বাস দেওয়া হলেও কার্যত সেই পরিমান কর্মসংস্থান হয়নি। যার জেরে ক্ষুব্ধ যুবসমাজ। এই পরিস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কাছে চাকরির আবেদন, রোজগারের আবেদন জানিয়ে একের পর এক টুইট করে চলেছে ছাত্র যুব সমাজ। টুইটারের ট্রেন্ডিং তালিকায় শীর্ষে “#মোদি রোজগার দো”।

২০১৪ সালের নির্বাচনের আগে প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদির দেওয়া চাকরির প্রতিশ্রুতি কথা স্মরণ করিয়ে টুইট করেছেন একাধিক ছাত্র-যুবরা। দীপাংশু কুমার নামে এক টুইটার ব্যবহারকারী লিখেছেন,”২০১৪ সালে মোদি সরকার আমাদের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল প্রত্যেক বছর দু’কোটি চাকরির সুযোগ তৈরি হবে কিন্তু আমরা যা পেয়েছি তা সবাই জানে।”

ডক্টর গৌরব গর্গ নামে অপর এক টুইটার ব্যবহারকারী লিখেছেন,”ভগবানের কাছে যাওয়ার রাস্তা পেট হয়েই যায়। খালি পেটে ভগবানকে অর্জন করা যায় না।”

এসএসসি সিজিএল ২০১৯-এর দ্রুত ফলাফল প্রকাশের আবেদন জানিয়ে রাহুল আনন্দ লিখেছেন,”যত শীঘ্র সম্ভব এসএসসি সিজিএল ২০১৯-এর ফলাফল প্রকাশ করুন।”