শিক্ষা কারো একার নয়

টিডিএন বাংলা ডেস্ক : “No mother should be ever choose between a child an education. অর্থাৎ কখনো যেন কোন মাকে তার সন্তান এবং শিক্ষার মধ্যে যেকোনো একটিকে বেছে নিতে না হয়।” এটি বলেছেন প্রফেসর এঙ্গেলবাগ্ যিনি জেরুজালেমের হিব্রু ইউনিভার্সিটি তে সাইকোলজি পড়ান। প্রফেসর ইউনিভার্সিটি তে ছাত্রীদের ক্লাসে সন্তানসহ ক্লাস করবার অনুমতি দিতেন, এমনকি ক্লাসে বসে দুগ্ধপান করালেও কোনরকম আপত্তি করতেন না।
২০১৫ সালে একদিন উনি রোজকার মতোই ক্লাস নিচ্ছিলেন টপিক ছিল “ওরগানাইজেশনাল বিহেভিয়ার” সেদিন ক্লাসে উপস্থিত ছিলেন একজন ছাত্রী ও তার ছোট্ট বাচ্চা, বাচ্চাটি হঠাৎ অনেক কান্নাকাটি শুরু করলে তার মা অস্বস্তিবোধ করে এবং ক্লাস থেকে বেরিয়ে যেতে চায়, তখন প্রফেসর এঙ্গেলবাগ্ বাচ্চাটাকে কোলে নিয়ে ক্লাসে কোন রকম অসুবিধা না হতে দিয়ে লেকচার কন্টিনিউ করেন। প্রফেসর এঙ্গেলবাগ্ মনে করেন, পুঁথিগত শিক্ষা কখনো শিক্ষার মাপকাঠি হতে পারে না সাধারণ মানবিক দিক গুলি থাকলে তবেই শিক্ষার প্রকৃত মর্যাদা দেওয়া সম্ভব।
পৃথিবীর বহু জায়গায় আজও কোন মেয়ে মা হয়ে গেলে, হাজার ইচ্ছে থাকা সত্ত্বেও তাদের বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই পড়াশুনো ছেড়ে দিতে হয়।শিক্ষার অধিকার এই পৃথিবীতে জন্মানো প্রতিটি মানুষেরই, তা সে ছেলে হোক বা মেয়ে, ধনী হোক বা গরীব, বিবাহিত হোক বাঅবিবাহিত, শিক্ষা সবার জন্য।