কুম্ভ মেলা ও নির্বাচন নিয়ে ভারত সরকারের অবস্থানে সমালোচনার ঝড় বিদেশী সংবাদপত্রেও

টিডিএন বাংলা ডেস্কঃ ভারত যখন করোনা ভাইরাসের থাবায় বিপর্যস্ত এবং ভাইরাসের দ্বিতীয় ধাক্কা সামলাতে নাজেহাল ভারতের চিকিৎসা মহল তখনই ভারত সরকারের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠলো বিদেশী সংবাদ পত্রে। অস্ট্রেলিয়ার একটি সংবাদপত্র সম্প্রতি শিরোনামঃ করে খবর করে ‘Modi leads India out of lock-down and into a viral apocalypse’ অর্থাৎ মদির নেতৃত্বে ভারত লক-ডাউন থেকে মুক্ত হয়ে মহামারির মধ্যে প্রবেশ করল। এই আর্টিকেলে তীব্রভাবে সমালোচনা করা হয় দেশজুড়ে করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও হাজার হাজার নির্বাচনী জনসভা করা এবং কুম্ভ মেলার মত বড় মেলাকে অনুষ্ঠিত হওয়ার অনুমতি প্রদান করার সরকারি নীতি কে। ভারতে সাংঘাতিকভাবে যে অক্সিজেনের সংকট তার জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের উদাসীনতাকে সমালোচনা করা হয়েছে এই আর্টিকেলে।

https://mobile.twitter.com/cgisydney

অস্ট্রেলিয়ার ভারতীয় হাই কমিশনের পক্ষ থেকে এই সংবাদপত্রের সম্পাদকের উদ্দেশ্যে একটি প্রতিবাদ পত্র পাঠানো হয়েছে। সেই পত্রে দাবী করা হয়েছে ভারত সরকার এই মহামারী প্রতিরোধের জন্য যে লড়াই করে চলেছে তাকে অবমূল্যায়ন করা হয়েছে। এই পত্রে ভারতীয় হাইকমিশনার তুলে ধরেছেন কিভাবে ভারত এই মহামারীর মোকাবেলার জন্য একের পর এক পদক্ষেপ গ্রহণ করে চলেছে।
ফরাসি সংবাদপত্র লে মনডে এই মহামারীর জন্য প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদির একগুঁয়েমি এবং ঔদ্ধত্যপূর্ণ মানসিকতাকে দায়ী করেছে। এই সংবাদপত্রে হসপিটালের সামনে অ্যাম্বুলেন্সের বিশাল লাইন এবং চিকিৎসার অপ্রতুলতার চিত্র তুলে ধরা হয়েছে বলা হয়েছে দেশের মানুষ অক্সিজেন ভিক্ষা করছে। জনগণের এই আহাজারি কখনো মিথ্যা বলতে পারে না। শহর থেকে গ্রাম, ধনী থেকে দরিদ্র প্রত্যেকেই চরম সংকটের মুখোমুখি। লে মনডের সম্পাদকীয়তে মন্তব্য করা হয়েছে এই মহামারীর জন্য শুধুমাত্র করোনাভাইরাস এর দ্বিতীয় কেউ দায়ী নয় বরং সরকারের উদাসীনতা এবং পরিকল্পনা হীনতা চরমভাবে দায়ী। এই পত্রিকার সম্পাদকীয়তে ও উঠে এসেছে কুম্ভ মেলা এবং নির্বাচনী জনসভার প্রসঙ্গও।