“এটা স্পষ্ট যে মুকুল রায় ‘ট্রোজান হর্স’ ছিলেন”; মুকুল রায় প্রত্যাবর্তনের পর এমনটাই মন্তব্য করলেন তথাগত রায়

ছবি সৌজন্যে তথাগত রায়ের ফেসবুক পেজ।

টিডিএন বাংলা ডেস্ক: গতকাল গেরুয়া শিবির ছেড়ে ঘাসফুল শিবিরে প্রত্যাবর্তন করেন বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি মুকুল রায়। মুকুল রায়ের এই প্রত্যাবর্তনের পর একাধিক টুইট করে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে আসা নেতাদের ইলিয়াড মহাকাব্যের ট্রোজান ঘোড়ার সঙ্গে তুলনা করেন তথাগত রায়। গ্রিক সেনাদের হাতে তৈরি কাঠের তৈরি সেই বিখ্যাত ঘোড়া যা, নিজেরাই নগরীর অভ্যন্তরে টেনে নিয়ে গিয়েছিল ট্রয়ের যোদ্ধারা। এরপর রাতের অন্ধকারে বেরিয়ে আসে গ্রিক সৈন্যবাহিনী। ছারখার হয়ে যায় গোটা ট্রয় নগরী। বিখ্যাত ইলিয়াড মহাকাব্যের সেই “ট্রোজান হর্স”-এর সঙ্গেই খাতায়-কলমে কৃষ্ণনগর উত্তরের বিজেপি বিধায়ক মুকুল রায়ের তুলনা করলেন বিজেপির প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি তথাগত রায়। তাঁর কথায়, মুকুল রায় গ্রিসের নির্মিত বিশালাকায় ঘোড়া “ট্রোজান হর্স”-এর মতোই বিজেপির অভ্যন্তরে প্রবেশ করেছিলেন। এবার বিজেপির সমস্ত অন্দরের হাল-হকিকত জেনে ফিরে গেছেন তৃণমূলে। শুধু তাই নয়, মুকুল রায় বিজেপির মধ্যে তাঁর মতনই আরো “ট্রোজান হর্স” রেখে গেছেন বলেও সংশয় প্রকাশ করেছেন তথাগত রায়।

ধারাবাহিক টুইট করে এপ্রসঙ্গে তথাগত রায় লেখেন,”ট্রোজান হর্সের গল্পটি আমরা অনেকেই জানি।ট্রোজান হর্স ছিল কাঠের ঘোড়া যা গ্রীকরা ট্রোজান যুদ্ধের সময় প্রাচীর প্রাচীরের ট্রয় শহরে প্রবেশ করতে এবং যুদ্ধে জয়ের জন্য ব্যবহৃত হত। ১০ বছরের নিষ্কলুষ অবরোধের পরে ওডিসিয়াসের নির্দেশে গ্রীকরা একটি বিশাল জায়গা নির্মাণ করেছিল।”

তিনি আরো লেখেন,”স্পষ্টতই মুকুল রায় ছিলেন একজন ট্রোজান ঘোড়া। বিজেপিতে স্বাগত জানার পরে, তার সর্বভারতীয় নেতাদের অ্যাক্সেস অর্জন করে এবং রাজ্য বিজেপির দোষী এবং ??? নেতাদের এবং দলের সম্পর্কে ও এর অন্তর্নিহিত বিশদ সম্পর্কে সমস্ত কিছু শিখলেন, তিনি ফিরে গেলেন এবং…”

ttps://twitter.com/tathagata2/status/1403558717807677444?s=20

এ সম্পর্কে তিনি আরো লেখেন,”মমতার কাছে সব ফাঁস করে দিলেন। তবে যা হওয়ার তা হয়ে গেছে। এখন বড় প্রশ্ন হ’ল, মুকুল কি এই ট্রোজান ঘোড়ার মধ্যে ট্রোজান ঘোড়াগুলি রেখে দিয়েছিলেন?প্রসঙ্গত, আমি ভাবতাম যে মুকুল কেন সবসময় আমার সাথে সাক্ষাৎ এড়িয়ে যায়। এখন এটি স্পষ্ট।”

মুকুল রায়কে শুধুমাত্র “ট্রোজান হর্স”-এর সঙ্গে তুলনা করেই ক্ষান্ত হননি তথাগত রায়। গত ১৩ মে কৈলাস বিজয়বর্গীয়কে লেখা মুকুল রায়ের একটি টুইটের প্রসঙ্গও উল্লেখ করেছেন তথাগত রায়। মুকুল রায়ের লেখা ওই টুইট বার্তার মন্তব্য তুলে ধরে নিজের অফিসিয়াল টুইটার হ্যান্ডেলের তথাগত রায় লেখেন,”মুকুল…টুইট করেছিলেন ১৩ মে বিজেপি নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয়কে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়ে।…৩৩ দিন আগে লিখেছিলেন, “রাজ্যে গণন্ত্র ফেরাতে বিজেপি-র সৈনিক হিসেবে আমার লড়াই চলবে। আমি সকলকে কল্পনা আর অনুমান বন্ধ করার অনুরোধ করছি। আমার রাজনৈতিক পথ নিয়ে সংকল্পে অবিচল আমি”।…”

প্রসঙ্গত, গতকাল মুকুল রায়ের তৃণমূল ভবনে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রত্যাবর্তনের আগেই তাঁর এই প্রত্যাবর্তনকে কটাক্ষ করে তথাগত রায় নিজের ফেসবুক পেজে সকালবেলা লেখেন,”তৃণমূল থেকে বিজেপিতে আসা যে সব নেতা আবার তৃণমূলে ফিরে গেছেন তাঁদের সম্বন্ধে আমি প্রয়াত সিপিএম নেতা হরেকৃষ্ণ কোঙারের একটি মন্তব্যের পুনরাবৃত্তি করছি। ‘মল মূত্র ত্যাগ করলে মানুষ দুর্বল হয় না, সবলই হয়’। ১৯৬৪ সালে যখন কম্যুনিস্ট পার্টি ভাঙে তখন সিপিআই নেতাদের সম্বন্ধে এই উক্তি।”

https://m.facebook.com/story.php?story_fbid=10158635721909794&id=772269793