আনিস মৃত্যুর বিচার চেয়ে বামেদের বিক্ষোভে রণক্ষেত্র পাঁচলা,  গ্রেপ্তার বিক্ষোভকারীরা

টিডিএন বাংলা ডেস্ক : হাওড়ার ছাত্রনেতা আনিস খান মৃত্যু কাণ্ডে প্রতিবাদে বাম ছাত্র, যুবদের মিছিল ঘিরে রণক্ষেত্র হয়ে উঠল হাওড়ার পাঁচলা। শনিবার হাওড়া গ্রামীণের পুলিশ সুপারের কার্যালয় অভিযান চালান এসএফআই, ডিওইএফআই সদস্যরা। আর সেই কর্মসূচিতে বেনজির তাণ্ডব দেখা গেল এদিন। অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে ১৬ নম্বর জাতীয় সড়ক। ভাঙচুর হয় পুলিশের একাধিক গাড়ি। পুলিশ বাধা দিলে হাতাহাতি বাধে। পুলিশের গাড়িতে আগুন লাগানোর চেষ্টা করা হয় বলেও অভিযোগ। রানিহাটি মোড় থেকে পাঁচলা—৬ নম্বর জাতীয় সড়ক জুড়ে ছড়িয়ে রয়েছে আধলা ইটের টুকরো, কাঁচের বোতল, খেটো বাঁশ।

এদিন জাতীয় সড়ক ধরে দুপুরে এসপি অফিসের সামনে পৌঁছনোর পর বিক্ষোভকারীদের আটকে দেয় পুলিশ। মিছিল আটকাতেই পুলিশের সঙ্গে খণ্ডযুদ্ধ বেঁধে যায় বাম ছাত্রযুবদের। পুলিশের সঙ্গে বেধে যায় হাতাহাতি। অভিযোগ, মিছিল থেকে বিক্ষোভকারীদের ছোঁড়া ইঁটের আঘাতে জখম হন পুলিশের কয়েকজন কর্মী। ভাঙে পুলিশের গাড়ির কাচও। এরপর পুলিশ আরও কড়া পদক্ষেপ নেয়। পরিস্থিতি সামাল দিতে পুলিশ লাঠিচার্জ করে, ফাটানো হয় কাঁদানে গ্যাসের শেল। আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন বিক্ষোভকারীও। ঘটনাস্থলে যান এডিজি (দক্ষিণ বঙ্গ) সিদ্ধনাথ গুপ্তা‌। গ্রেপ্তার হন সিপিএমের যুব সংগঠনের নেত্রী মীনাক্ষী মুখোপাধ্যায়, সৃজন ভট্টাচার্য-সহ আরও কয়েকজন বিক্ষোভকারী।

এই ঘটনা প্রসঙ্গে মুখ খুলেছেন তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ। তিনি মন্তব্য করেন, ‘এটা দেউলিয়া রাজনীতি। সিট তদন্ত করছে, হাইকোর্টও সিটের উপর আস্থা রেখেছে তখন এসব করে অরাজকতা সৃষ্টির চেষ্টা করছে সিপিএম। পুলিশ আজকে অনেক সংযত ছিল।’