ভারতে ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের ওপরে হিংসা, বৈষম্য ও হত্যার ঘটনা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ মার্কিন বিদেশসচিব অ্যান্টনি ব্লিঙ্কনের রিপোর্টে

টিডিএন বাংলা ডেস্ক: ভারতে করোনার এই সংকটে আমেরিকা বন্ধুর মত পাশে থাকলেও জো বাইডেন সরকারের একটি সরকারি রিপোর্ট প্রকাশ্যে এসে প্রবল অস্বস্তিতে ফেলেছে মোদী সরকারকে। সম্প্রতি মার্কিন বিদেশ সচিব অ্যান্টনি ব্লিঙ্কনের মার্কিন কংগ্রেসকে দেওয়া একটি রিপোর্টে ভারতে ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের উপর হিংসা, বৈষম্য এবং তাদের হত্যার ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে। ওই রিপোর্টে তাবলীগী জামাতের প্রসঙ্গ উল্লেখ করে কোভিড ছড়ানোর অভিযোগে মুসলমান সম্প্রদায়ের দিকে তর্জনী তোলার ঘটনাতেও উদ্বেগ ব্যক্ত হয়েছে। রিপোর্টে বলা হয়েছে, আমেরিকার সংশ্লিষ্ট কর্তারা ভারতীয় কর্তাদের সঙ্গে সিএএ-সংক্রান্ত বিষয় নিয়েও কথা বলেছেন।

মার্কিন বিদেশ সচিব অ্যান্টনি ব্লিঙ্কনের ওই রিপোর্টে গত বছরের মার্চ মাসে তাবলীগী জামাতের প্রসঙ্গ উল্লেখ করে বলা হয়েছে, “মার্চে দিল্লিতে তবলিগি জামাতের একটি সভাকেই প্রাথমিক ভাবে দেশে করোনা সংক্রমণের জন্য দায়ী করেছিল সরকার এবং সংবাদমাধ্যম। সেই সভায় অংশগ্রহণকারী ছ’জনের করোনা রিপোর্ট পজ়িটিভ আসে। প্রাথমিক ভাবে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক দাবি করেছিল, দেশে করোনা আক্রান্তদের অধিকাংশেরই সেই সভার সঙ্গে যোগ আছে।”

এর আগেও ভারতের মোদী সরকারের ওপর এধরনের অভিযোগ উঠেছে মার্কিন মুলুক থেকে। মার্কিন সরকারের অধীনস্থ আন্তর্জাতিক ধর্মীয় স্বধীনতা সংক্রান্ত কমিটির রিপোর্টেও ভারতের সংখ্যালঘুদের উপর অত্যাচারের কথা বলা হয়। সেসময় ভারতের পক্ষ থেকে সেই অভিযোগ খারিজ করে বলা হয়েছিল, কোনও বিদেশি রাষ্ট্রের অধিকার নেই অন্য দেশের সংবিধানসম্মত অধিকার নিয়ে মন্তব্য করার।