শিক্ষার উৎকৃষ্ট সময়ে মানসিকতা পরিবর্তন জরুরি

টিডিএন বাংলা ডেস্ক: ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে বিবাহ মেনে নেওয়াটাই খুব জরুরী একটি সামাজিক অনুশীলন। অভিভাবকরা শুধু ভিন্ন ধর্মে বিবাহের জন্য যদি নিজেদের সন্তান কে দূরে ঠেলে দেয় তা কখনোই আদর্শ সামাজিক রীতি হতে পারে না, এ কথা জানালেন সঞ্জয়কৃষ্ণ কউল ও হৃষিকেশ রায়ের ডিভিশন বেঞ্চ। শীর্ষ আদালতের পর্যবেক্ষণ, “নিজের সঙ্গী পছন্দ করার অধিকার আছে প্রত্যেকটি যুবক-যুবতির আর সেটা মেনে নিতে শিখতে হবে সমাজকে, শিক্ষার এখনই উৎকৃষ্ট সময়”।


তবে ইতিমধ্যে মধ্যপ্রদেশ ও উত্তরপ্রদেশের মত বিজেপি শাসিত রাজ্যে ভিন্ন ধর্মে বিয়েকে লাভ জেহাদ আইনে ঘোষণা করেছে। মধ্যপ্রদেশে লাভ জেহাদ আইনে দোষী সাব্যস্ত হলে ১০ বছর পর্যন্ত জেল এবং ১০ লাখ টাকা পর্যন্ত জরিমানা করা হয়।
মধ্যপ্রদেশের মন্ত্রী তথা এরাজ্যের ৪৫ টি বিধানসভা কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত বিজেপি নেতা নরত্তম মিশ্র মন্তব্য করেন, “বাংলায় বিজেপি ক্ষমতায় এলেই মধ্যপ্রদেশের মতো এরাজ্যে ও লাভ জেহাদ আইন চালু হবে। বিজেপি বাংলার নীলবাড়ি দখল করলে তিনি মুখ্যমন্ত্রীর কাছে লাভ জেহাদ আইন প্রণয়নের দাবি জানাবেন”।

সুপ্রিম কোর্ট জানায়, ” আইন করে আটকানোর তো প্রশ্নই নেই, বরং ভিন্ন ধর্ম-বর্ণে বিয়ে মানতে শিখতে হবে সমাজকে”।