বাঙালির ছেলেবেলাকে যিনি রাঙিয়েছেন, ভারত সরকার এবার তাকে দিল ‘পদ্ম’

টিডিএন বাংলা ডেস্ক : বাংলা কমিকসের জগতে নারায়ন দেবনাথ এক অনবদ্য স্রষ্টা। বাঙালির ছেলেবেলা আরও রঙিন হয়েছে তারই হাত ধরে। যিনি আমাদের হাঁদা ভোঁদা, বাটুল দি গ্রেট, নন্টে ফন্টে,বাহাদুর বেড়াল প্রভৃতি বিখ্যাত কার্টুন চরিত্রের উপহার দিয়েছেন সেই নারায়ন দেবনাথ এবার পদ্মভূষণে ভূষিত হয়েছেন।

এবছর পদ্মশ্রী সম্মান পেয়েছেন ১০২ জন, এদের মধ্যে নারায়ন দেবনাথ সহ ৭ জন বাঙালি পাচ্ছেন ভারত সরকারের এই পুরস্কার।কামতাপুরী ভাষার প্রসারে ধর্মনারায়ন বার্মার অবদানের জন্য তাকে পদ্মশ্রীর জন্য মনোনীত করেছেন ভারত সরকার। শিক্ষা ও সাহিত্য বিভাগে পদ্মশ্রী পাচ্ছেন সুজিত চট্টোপাধ্যায় ও জগদীশচন্দ্র হালদার। বর্ধমানের শিক্ষক সুরজিৎ চট্টোপাধ্যায় বছরে মাত্র দু টাকার বিনিময় ৩০০ জন ছাত্রছাত্রীকে পড়ান,এবং সমাজের বিভিন্ন প্রতিকূল অবস্থায় তিনি ঝাঁপিয়ে পড়েন কোনকিছুর পরোয়া না করে।শিল্পী বিভাগে পদ্মশ্রী পাচ্ছেন শান্তিপুরের তাঁত শিল্পে বীরেন কুমার বসাক। সাঁওতাল সমাজের গুরুমা কমলি সোরেন পদ্মশ্রী সম্মানে ভূষিত হয়েছেন। বাংলার প্রথম টেবিল টেনিস খেলোয়াড় মৌমা দাস পদ্মশ্রী সম্মানে ভূষিত হয়েছেন। ভারতীয় হিসেবে তিনি দ্বিতীয় টেবিল টেনিস খেলোয়াড়। এছাড়াও আরো দুজন বাঙালি, মুক্তিযোদ্ধা কর্নেল কাজী সাজ্জাদ আলী জাহির এবং সঙ্গীত বিশেষজ্ঞ সানজিদা খাতুন বিদেশি বিভাগে পদ্মশ্রী’ পেয়েছেন।
৯৮ বছরের প্রবাদ প্রতিম নারায়ন দেবনাথ বর্তমানে বার্ধক্য জনিত নানা সমস্যায় ভুগছেন, তবে দেরিতে হলেও ভারত সরকার তার গুণের স্বীকৃতি দেওয়ার খুশি হয়েছেন দেবনাথ পরিবার। নারায়ন দেবনাথ জানিয়েছেন, “দেরিতে এই সম্মান পাওয়ায় আমার কোনো দুঃখ নেই, যার যখন যেটা পাবার তখন পাবেন।”
তার সৃষ্টি চরিত্রগুলো টেলিভিশনের পর্দাতেও জায়গা করে নিয়েছে।