“টিকাই যখন নেই, ব্যবধান বাড়ানো ছাড়া গতি কী?” কেন্দ্রকে কটাক্ষ আমেরিকার স্বাস্থ্য উপদেষ্টা ফসির

টিডিএন বাংলা ডেস্ক: “টিকাই যখন নেই, ব্যবধান বাড়ানো ছাড়া গতি কী?” মন্তব্য করলেন মার্কিন স্বাস্থ্য  উপদেষ্টা ফসি। প্রসঙ্গত, গতকালই কোভিশিল্ডের ২টি টিকার মধ্যেকার ব্যবধান বাড়িয়ে ১২ থেকে ১৬ সপ্তাহ করে দিয়েছে কেন্দ্র। এই নিয়ে তা নিয়ে গত ৩ মাসে দ্বিতীয় বার ব্যবধান বাড়ানো হল। ইতিমধ্যেই সমালোচনার ঝড় উঠেছে দেশ জুড়ে। অভিযোগ, নিজেদের ব্যর্থতা ঢাকতেই ইচ্ছাকৃতভাবে দুটি ভ্যাকসিনের মধ্যে ব্যবধান বাড়াচ্ছে কেন্দ্র। এই পরিস্থিতিতে মার্কিন স্বাস্থ্য উপদেষ্টা এপ্রসঙ্গে একটি সর্বভারতীয় সংবাদ সংস্থাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বলেন,”পরিস্থিতি যখন অত্যন্ত সঙ্কটজনক, এই মুহূর্তে ঠিক যেমনটি ভারতে, তখন অন্য উপায় খুঁজতেই হবে। অন্তত চেষ্টা চালিয়ে যেতে হবে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব বেশি সংখ্যক মানুষকে টিকাকরণের আওতায় আনার। টিকাই যখন নেই, ব্যবধান বাড়ানো ছাড়া গতি কী? তাই আমার মনে হয়, ব্যবধান বাড়ানোর সিদ্ধান্ত যুক্তিসম্মত। কারণ তাতে অন্তত একটি করে হলেও টিকা পাবেন মানুষ।”

এর পাশাপশি ফসির মন্তব্য, দেশের সমস্ত নাগরিকদের জন্য ভ্যাকসিন উৎপাদনের ক্ষমতা থাকলেও ভারতের উচিত তার জন্য যাবতীয় সংস্থান, উপায়কে কাজে লাগানো। তিনি বলেন,”বাইরের দেশ এবং বড় বড় সংস্থাগুলির সঙ্গে হাত মিলিয়ে উৎপাদন শক্তি বাড়াতে হবে ভারতকে। বৃহত্তম না হলেও টিকা উৎপাদনের ক্ষেত্রে ভারতই শ্রেষ্ঠ জায়গা। তাই দেশের নাগরিকদের জন্য যাবতীয় সংস্থান, উপায়কে কাজে লাগাতে হবে সরকারকে।” শুধু তাই নয়, টিকার অভাব থাকলে তাতে লোকানোর কিছু নেই বলেও মন্তব্য করেন ফসি।