টিডিএন বাংলা ডেস্ক: ফের সরব বেশ কিছু মুসলিম রাষ্ট্র। অধিকৃত পশ্চিম তীরের দখলিকরণের বিষয়ে ইসরাইলি পরিকল্পনার বিরুদ্ধে নয়টি আরব দেশ কার্যকর আন্তর্জাতিক অবস্থানের আহ্বান জানিয়েছে। খবরে প্রকাশ, মঙ্গলবার জর্ডান, মিশর, সংযুক্ত আরব আমিরাত (ইউএই), সৌদি আরব, ফিলিস্তিন, মরক্কো, তিউনিসিয়া, ওমান ও কুয়েতের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা ভার্চুয়াল বৈঠক করেছেন।
বৈঠকের পর জারি করা এক বিবৃতিতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে “আন্তর্জাতিক আইন ও শান্তি রক্ষায় ইসরাইলি পরিকল্পনা বাস্তবায়ন রোধে সুস্পষ্ট ও কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের” আহ্বান জানানো হয়েছে।

এতে দ্বি-রাষ্ট্রীয় সমাধানের ভিত্তিতে ফিলিস্তিনি-ইসরাইলি দ্বন্দ্ব সমাধানের জন্য জরুরি ও কার্যকর আলোচনার দেকে ফিরে যাওয়ার প্রয়োজনীয়তার কথাও উল্লেখ করা হয়েছে।

এসময় আরব মন্ত্রীরা ২০০০ সালের আরব পিস ইনিশিয়েটিভ সমর্থন করে ১৯৬৭ সালে দখলকৃত আরব ভূমি থেকে ইসরাইলকে সরে যাওয়া ও ফিলিস্তিনি রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার বিনিময়ে আরব রাষ্ট্রসমূহ ইসরাইলকে পূর্ণ কূটনৈতিক স্বীকৃতি প্রদানের বিষয়ে একাত্মতা পোষণ করে।
ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু ১ জুলাইয়ের মধ্যে দখলকৃত পশ্চিম তীরের সমস্ত ব্লক এবং জর্ডান উপত্যকা দখলের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

তবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রশাসনিক মতপার্থক্যের পাশাপাশি ব্যাপকভাবে আন্তর্জাতিক সমালোচনার মাধ্যমে প্রত্যাখ্যান হওয়ায় এ পদক্ষেপ বর্তমানে থামিয়ে দেয়া হয়েছে বলে মনে করা হয়।

আন্তর্জাতিক আইনে পশ্চিম তীর এবং পূর্ব জেরুসালেম উভয়কেই “অধিকৃত অঞ্চল” হিসেবে বিবেচনা করে ও সেখানে সব ধরণের ইহুদিদের বসবাস ও নির্মাণ কার্যক্রমকে অবৈধ বলে বিবেচনা করে। খবর ইয়েনি শাফাক।
কিন্তু ইসরাইল জোরপূর্বক হলেও জমি দখল করে তাদের স্বপ্নপূরণ করবে বলে জানা যাচ্ছে। আর সেটা হলে আন্তর্জাতিক স্তরে তীব্র সমালোচনার মুখে পড়তে হতে পারে বলে অনেকে মনে করেন।