টিডিএন বাংলা ডেস্ক: করোনা মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ২১ দিনের জন্য লকডাউন ঘোষণা করেছেন। দেশকে করোনা মুক্ত করতে সামাজিক দূরত্ব ও লকডাউনের নিয়ম মেনে চলেছেন দেশবাসী। কিন্তু ব্যতিক্রম দেখা গেল বিজেপি বিধায়ককেই। লকডাউনের নিয়মকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে নিজের জন্মদিনে ভিড় জমিয়ে রেশন বিলি করলেন মহারাষ্ট্রের ওয়ারধা জেলার আরভি কেন্দ্রের বিজেপি বিধায়ক দাদারাও কেচের।
লকডাউন এবং সামাজিক দুরত্বকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে তিনি সাড়ম্বরে পালন করলেন নিজের জন্মদিন।

নিজের বাড়ির সামনে কয়েকশো মানুষের ভিড় জমিয়ে তাঁদের মধ্যে ত্রাণ বিলি করছিলেন। বলা বাহুল্য, ত্রাণ বিলির সময় সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার বিষয়টি আর তাঁর মাথায় ছিল না। লোকজন রীতিমতো হুড়োহুড়ি বাঁধিয়ে দিয়েছেন একটু চাল এবং গম পাওয়ার জন্য। যা কিনা শুধু স্বাস্থ্যবিধির পরিপন্থীই নয়, রীতিমতো বিপজ্জনক। কারণ, মহারাষ্ট্র দেশের সবচেয়ে বেশি সংক্রমিত রাজ্যগুলির একটি। রবিবার সকালের এই ঘটনা সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়। ছবি ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়তেই পুলিশ গিয়ে ওই ভিড় সরিয়ে দেয়।

প্রধানমন্ত্রী ও চিকিৎসকরা বার বার সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার কথা বললেও বিজেপিরই এক বিধায়ক এমন দায়িত্বজ্ঞানহীন কাণ্ড ঘটালেন কী করে? এই নিয়ে প্রশ্নের মুখে পড়েছেন তিনি। যদিও সাফাই দিয়ে ওই বিজেপি বিধায়কের দাবি, আমার উদ্দেশ্য ছিল ২১ জনকে ত্রাণ দেওয়া। প্রতি বছরই নিজের জন্মদিনে আমি এই কাজটি করে থাকি। কিন্তু বিরোধীরা ষড়যন্ত্র করে এত লোক পাঠিয়ে দিয়েছে। কিন্তু ওই বিধায়কের কোনও সাফাই কাজে লাগেনি। পুলিশ জানিয়ছে, তিনি বিনা অনুমতিতেই জমায়েত করেছিলেন। মহামারি আইন ভঙ্গের অভিযোগে তাঁর বিরুদ্ধে মামলা রুজু করা হয়েছে।