টিডিএন বাংলা ডেস্ক : উত্তর প্রদেশের মাদ্রাসা গুলির বিরুদ্ধে যোগি সরকারের কড়াকড়ির পর এইবার উত্তরাখণ্ডেও মাদ্রাসাগুলিকে টার্গেট করা হয়েছে। রাজ্যের ত্রিবেন্দ্র সিং রাওয়াতের নেতৃত্বাধীন বিজেপি সরকার প্রায় ২০০ টি মাদ্রাসার বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করেছে। রাজ্য শিক্ষা দফতরের নির্দেশেই এই মাদ্রাসাগুলির বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু হয়েছে। তদন্তকারী দল, মাদ্রাসাগুলির অভ্যন্তরীণ বিষয়াদি খতিয়ে দেখছে। তদন্তকারী দলের এহেন কর্মকান্ডে প্রশ্ন তুলেছে মাদ্রাসাগুলির কর্তৃপক্ষ। পাশাপাশি রাজ্য সরকারের এই সিদ্ধান্তের তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন কংগ্রেস।

 

 

রাজ্যের সমস্ত সরকারি স্বীকৃতিপ্রাপ্ত মাদ্রাসাগুলির বিরুদ্ধে তিন পর্যায়ের তদন্ত শুরু করেছে শিক্ষা দপ্তর। মাদ্রাসা বোর্ডের পরিচালক ও ডিজি আলোক শেখর তিওয়ারির কথায়, মাদ্রাসাগুলির বিরুদ্ধে আনুগত্যহীনতার অভিযোগ আসছিল শিক্ষা দফতরে। এই অভিযোগের কারনেই রাজ্যের সরকারি সহায়তাপ্রাপ্ত মাদ্রাসাগুলির বিরুদ্ধে তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি। মনে করা হচ্ছে, মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষের আয়-ব্যয়ের খাতা অথবা অভ্যন্তরীণ কোনও বিষয়ে সামান্য ত্রুটি মিললে ওই মাদ্রাসাগুলির বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেবে রাজ্যের বিজেপি সরকার । রাজ্য সরকারের এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে সরব হয়েছে কংগ্রেস। পার্টির রাজ্য সভাপতি প্রীত সিং মাদ্রাসার বিরুদ্ধে তদন্তের নির্দেশ দেওয়ায় ত্রিবেন্দ্র সরকারের কঠোর সমালোচনা করেছেন।

 

 

উল্লেখ্য, এর আগে উত্তরপ্রদেশের বিজেপি সরকারও ২৬০০ মাদ্রাসাকে সরকারি সুবিধা দেওয়া থেকে বঞ্চিত করেছে। নির্ধারিত তারিখের মধ্যে ওই মাদ্রাসাগুলি কোনও কারনবশত তাদের তথ্য রাজ্য সরকারের ওয়েবসাইটে আপলোড করতে পারেনি বলেই তাদের বঞ্চিত করা হয়। শুধু তাই নয়, ইউপির যোগি সরকার স্বাধীনতা দিবসের সময় মাদ্রাসাগুলিকে দেশপ্রেমের প্রমাণ চেয়েছিল। প্রমাণ হিসাবে মাদ্রাসাগুলির স্বাধীনতা অনুষ্ঠানের ভিডিও রেকর্ড সরকারি দফতরে পাঠানোর নির্দেশও দেওয়া হয়েছিল।