নিজস্ব সংবাদদাতা, টিডিএন বাংলা, কলকাতা: ঐতিহ্যবাহী অক্সফোর্ড ইউনিয়নে বক্তৃতা করার আমন্ত্রণ এল হরিশ চ্যাটার্জি স্ট্রিটের বাড়িতে। সোমবার অক্সফোর্ডের সেন্ট পিটারস কলেজের প্রেসিডেন্ট বিট্রিস বারের লেখা চিঠি পেয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। করোনা পরিস্থিতি অব্যাহত থাকায় ভার্চুয়ালি অক্সফোর্ড ইউনিয়নের বিতর্ক সভায় ভাষণ দেবেন মমতা। অতিমারি পরিস্থিতির জেরে এবারই প্রথম শতাব্দী প্রাচীন ডিবেটের আসর বসবে অনলাইনে। অতীতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট নিক্সন, কার্টার থেকে শুরু করে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে, অভিনেতা মর্গান ফ্রিম্যান, ক্লিন্ট ইস্টউড থেকে শুরু করে জনি ডেপ, পিয়ার্স ব্রসনন, তিব্বতি ধর্মগুরু দলাই লামা, সমাজসেবী মাদার টেরিসা থেকে শুরু করে অর্থনীতিবিদ টমাস পিকেটি, অক্সফোর্ড ইউনিয়নের ডিবেটে অংশ নিয়েছেন। ১৮২৩ সালে তৈরি এই বিতর্ক সভায় অংশ নেওয়ার এক ভিন্ন তাৎপর্য। খোদ সেই অক্সফোর্ড ইউনিয়ন থেকে ডাক এল মমতা ব্যানার্জির কাছে। ২০১৭ সালেও একবার আমন্ত্রণ এসেছিল। এবার ফের ডাক এল।
মুখ্যমন্ত্রীকে পাঠানো আমন্ত্রণপত্রে সেন্ট পিটারস কলেজের প্রেসিডেন্ট বিট্রিস বার লিখেছেন, অক্সফোর্ড ইউনিয়নের বিতর্কসভার ঐতিহ্য দুই শতাব্দী প্রাচীন। বিভিন্ন সময় বিশ্বের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিত্ব নিজের অনুভূতি এবং ভাবনার তার্কিক উপস্থাপন করে আসছেন অক্সফোর্ড ইউনিয়ন ডিবেটে। এবার সেই ঐতিহ্যকে আরও এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার লক্ষ্যে আপনাকে বিতর্কে আমন্ত্রণ জানাচ্ছি। আশা করি আপনি আমাদের আমন্ত্রণ গ্রহণ করবেন।
অক্সফোর্ড ইউনিয়ন ডিবেটকে বিশ্বের তার্কিকতার ইতিহাসে মাইল ফলক হিসেবে ধরা হয়। বিট্রিস বার লিখেছেন, আমি একটি ভারতীয় সংবাদপত্রে পড়েছিলাম আপনার সম্বন্ধে। সেখানে লেখা ছিল, কোনও গডফাদার ছাড়াই ভারতের একমাত্র মহিলা রাজনীতিবিদ হিসেবে আপনার উত্থান এবং অবশেষে সরকার গঠন। এখন সরকার গঠনেরও একাধিক মেয়াদ শেষ করে ফেলেছেন। আপনার জীবনের কাহিনি শুনতে আমরা সবাই অত্যন্ত আগ্রহী।
অক্সফোর্ড ইউনিয়ন বিতর্কে সাধারণত একটি ভাষণ এবং আনুষ্ঠানিক আলাপচারিতার কার্যক্রম থাকে। অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির ঐতিহ্যবাহী বিল্ডিংয়েই বসে বিতর্কের আসর। কিন্তু এবার বাদ সেধেছে করোনা। অক্সফোর্ড ইউনিয়ন থেকে মমতাকে পাঠানো চিঠিতে বলা হয়েছে, করোনা পরিস্থিতির জেরে অক্সফোর্ডে যাতায়াতের সমস্যা অব্যাহত থাকলে আমরা অনলাইন ডিবেটের আয়োজন করব বলে ভেবে রেখেছি। কিন্তু যদি যাতায়াতে নিষেধাজ্ঞা উঠে যায়, তাহলে আমরা আপনাকে সশরীরে অক্সফোর্ডে আসার আমন্ত্রণ জানাতে চাই। সেখানে ব্যক্তিগতভাবে আমি আপনাকে আমন্ত্রণ জানাবো।
তৃণমূল সূত্রে খবর, এ বছর অক্সফোর্ড ইউনিয়নের ডিবেট হবে অনলাইনে এবং তাতে যোগ দেবেন মুখ্যমন্ত্রী।