টিডিএন বাংলা ডেস্ক : পুলওয়ামা জঙ্গি হামলার পরে ই়ডেনে রাখা পাক অধিনায়ক ইমরান খানের ছবি সরিয়ে দেওয়ার একটা দাবি উঠেছিল ৷ প্রাথমিকভাবে ছবিটি ঢেকেও দেওয়া হয় ৷ কিন্তু তারপর সেই ছবি নামানোর কোনও পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি ৷ আর সেই ছবি সরানো নিয়ে চাপ বাড়নোর জন্যেই সিএবির সামনে বিক্ষোভের সিদ্ধান্ত নেয় বিজেপি। ছবি সরানো না হওয়ায় শনিবার বিক্ষোভ মিছিল করে যুব মোর্চার কর্মীরা। তারা বলেন, ইডেন গার্ডেন থেকে ৪৮ ঘন্টার মধ্যে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের ছবি সরাতে হবে। যতদিন না এই ছবি সারাবে ততোদিন পর্যন্ত এই দাবিতে তারা বিক্ষোভ দেখাবে। ইডেন থেকে ইমরান খানের সঙ্গে ওয়াসিম আক্রম ও রামিজ রাজার মতো পাকিস্তান এর ক্রিকেটার ছবি খোলারও দাবি জানান তারা।

আগে থেকেই স্থির ছিল বিজেপির একটি শাখা শনিবার ইডেনের সামনে বিক্ষোভ দেখাবে ৷ সেভাবেই শুক্রবার রাত থেকেই বাড়তি পুলিশ মোতায়েন ছিল। শনিবার দুপুরের পর থেকে বিক্ষোভ মিছিল ইডেনের দিকে এগোতে থাকলে পুলিশের সঙ্গে যুব মোর্চার কর্মীদের ধস্তাধস্তি হয়। এর ফলে বিজেপির যুব মোর্চার ৪০ জন কর্মীকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এর মধ্যে আছেন বিজেপির সাধারণ সম্পাদক রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়, সঞ্জয় সিং, যুব মোর্চার সভাপতি দেবজিৎ সরকার প্রমুখ। বিজেপির সাধারণ সম্পাদক রাজু বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, আমরা শান্তিপূর্ন ভাবেই মিছিল নিয়ে যাচ্ছিলাম। কিন্তু সেই শান্তিপূর্ণ মিছিলে বাধা দেয় পুলিশ। আমাদের প্রায় ৬০ জন কর্মকর্তাকে গ্রেফতার করা হয়।

যুব মোর্চার এই আন্দোলনকে সমর্থন করেছ বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, দেশে যা কিছু উৎপাত হচ্ছে তার জন্য পাকিস্তান দায়ী। ক্রিকেট কেন সব কিছুই বয়কট করা উচিত। দেশের সম্মানকে বিসর্জন দিয়ে কেন খেলবো আমরা। যারা পাকিস্তানের সঙ্গে খেলার পক্ষে বলছে তারা দেশের স্বার্থে বলছে না।

যদিও এসব কিছু নিয়ে মাথা ঘামাতে নারাজ সিএবি প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ৷ তিনি জানিয়েছেন, তাঁর যা বলার তিনি আগেই জানিয়ে দিয়েছেন, নিজের সিদ্ধান্তেই তিনি অনড় থাকছেন ৷ শুধু এটুকু বলেই থামেননি মহারাজ ৷ তিনি আরও বলেছেন এর চেয়ে বড় আন্দোলন হলেও সেটা নিয়ে তিনি চিন্তিত নন ৷

তবে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে বিশ্বকাপে খেলা না খেলা নিয়ে প্রশ্নে তিনি জানান, ভারতের হাতেই তিনি কাপ দেখতে চান।