রেবাউল মন্ডল, টিডিএন বাংলা, ফারাক্কা :  ইউনিসেফ ও ওয়েস্ট বেঙ্গল বোর্ড অফ মাদ্রাসা এডুকেশনের যৌথ উদ্যোগে একটি টিম আজ ফারাক্কার নুর জাহানারা স্মৃতি হাই মাদ্রাসা পরিদর্শন করেন। মাদ্রাসায় মীনা মঞ্চ কি রকম  কাজ করছে? কাজ করতে গিয়ে কোথায় কোথায় সমস্যা হচ্ছে এবং মঞ্চের ভবিষ্যত পরিকল্পনা কি? এসব বিষয়েই মূলত খোঁজ খবর নেন তাঁরা। প্রতিনিধি দলে  ছিলেন প্রশান্ত রায় ও রাহুল সাঊ।

মীনা সদস্যদের পুরো কাজ, ডকুমেন্টশন, মাসিক রিপোর্ট, সভা ও তার রেজোলিউসন, বিদ্যালয়ের পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা, মিড ডে মিল সহ অন্যান্য আনুষঙ্গিক বিষয় খতিয়ে দেখেন প্রতিনিধি দলটি। পরিদর্শনের পর মাদ্রাসার কাজে তারা মুগ্ধ হন ও প্রধান শিক্ষকের এই সাফল্যের তারা ভূয়সী প্রশংসা করেন। প্রধান শিক্ষক জানে আলম সাহেব তাদের সামনে মাদ্রাসার উন্নয়নের অতীত বর্তমান ও ভবিষ্যত পরিকল্পনার কথা তুলে ধরেন।

ফারাক্কা ব্লকের প্রত্যন্ত মহেশপুর গ্রামের শিশু ও সমাজ নিয়ে আলম সাহেবের চিন্তা চেতনা ও  পরিশ্রমকে কুর্নিশ জানান প্রশান্ত বাবু। মহেশপুর পঞ্চায়েতের প্রধান জাসমিনারা জানান, ছয় বছর আগে এই মাদ্রাসায় কোন বিল্ডিংই ছিল না। মাত্র তেরোজন ছাত্র নিয়ে বটতলা প্রাইমারি একটি ঘরে ক্লাস শুরু হয়। আমাদের সৌভাগ্য মহেশপুরের আকাশে নতুন সূর্য জানে আলম। শুরু থেকেই তিনি শিক্ষা ও স্বাস্থ্য সচেতনতার উপর বাড়িবাড়ি প্রচার চালিয়ে সমাজে শান্তি ও শিক্ষার প্রদীপ জ্বালিয়েছেন।

প্রধান শিক্ষক জানে আলম মনে করেন,  সমাজের উন্নয়ন করতে হলে প্রথমে শিশুর উন্নয়ন দরকার। সমস্ত শিশুদের মাদ্রাসায় ভর্তি করা, শিশুদের নেতৃত্বদানের ক্ষমতা বৃদ্ধি করা , শিক্ষার্থীদের মাধ্যমে মাদ্রাসা সঠিক পরিচর্যা ও নারী শিক্ষার বিস্তৃতি দরকার। এই উদ্দেশ্য চরিতার্থ করার জন্যই তিনি মীনা মঞ্চ গঠন করেন। মাদ্রাসার অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী মাহেনুরা জানায়, প্রধান শিক্ষককে পেয়ে আমার অত্যন্ত গর্বিত এবং মীনা মঞ্চে যোগদানের মাধ্যমে আমি আমার আত্মসন্মান, আত্মবিশ্বাস ও অধিকার সম্পর্কে সচেতন হয়েছি।

মাদ্রাসা সিনিয়র শিক্ষক জিয়াউল হক বলেন, প্রধান শিক্ষক আমাদের পথ প্রদর্শক। এই চার বছরে ১৩ থেকে ৬২৭ শিশুর পিতা হতে পেরেছি। আমরা প্রধান শিক্ষক মহাশয়কে সার্বিকভাবে সহযোগিতা করে আসছি এবং আগামীতেও করবো। নানা বাধা ও বিপত্তিকে উপেক্ষা করে প্রধান শিক্ষকের এই বিদ্যালয়বৃক্ষ তরতরিয়ে বৃদ্ধি পাচ্ছে। এলাকার মানুষ তাঁর কাজে খুবই সন্তুষ্ট।

মাত্র চার বছরে মীনা মঞ্চের এই সাফল্যের জন্য প্রশান্ত রায় নুর জাহানারা টিম ওয়ার্ক কে ধন্যবাদ জানান। দুপুরে খাওয়ার পর মীনা মঞ্চের কাজের উপর একটি নাটক পরিদর্শন করে মীনার সদস্যরা। ঐ প্রতিনিধি দল জানান আগামীতে  মীনা সদস্যদের লিডারশিপ ট্রেনিং দেওয়া হবে। প্রধান শিক্ষক জানে আলম সাহেব প্রতিনিধি দলের হাতে ‘এ ভেঞ্চার অফ নূর জাহানারা স্মৃতি হাই মাদ্রাসা অন মীনা মঞ্চ ইন্সপায়ার ইউনিসেফ’ এবং ‘এন আউট লাইন অফ মাদ্রাসা স্ট্রাটেজি ফর পাস্ট প্রেজেন্ট এন্ড ফিউচার ফর ইম্প্রুভিং দি মাদ্রাসা’ এর গাইড লাইন তুলে দেন।