দারিদ্র সবথেকে বেশি ভারতে, চাঞ্চল্যকর দাবি অক্সফ্যাম রিপোর্টে

টিডিএন বাংলা ডেস্ক : লকডাউনের সময় দেশের ধনকুবেরদের সম্পদ বেড়েছিল ৩৫ শতাংশ। তারপর টিকাকরণ শুরু এবং দ্বিতীয় ঢেউ। সব সামলেও ২০২১ সালে ভারতের ধনীতমদের সম্পদ বেড়েছে দ্বিগুণের বেশি। অথচ একই সময়ে দেশের প্রায় ৮৪ শতাংশ পরিবারের উপার্জন ব্যাপক হারে কমেছে। কোভিড-১৯ সঙ্কটের জেরে দারিদ্র সবচেয়ে বেশি বেড়েছে ভারতে। ব্রিটেনের এনজিও সংস্থা অক্সফ্যাম ‘ইনইকুয়ালিটি কিলস’ রিপোর্টে ওই দাবি করেছে।

ওই রিপোর্ট অনুযায়ী, ২০২১ সালে দেশের সেরা ১০০ ধন কুবেরের সম্পত্তি দ্বিগুণ হয়ে পৌঁছে গেছে প্রায় ৫৭.৩ লক্ষ কোটি টাকার অবিশ্বাস্য অঙ্কে। এই সম্পদের পরিমাণ গরিব ৪০% দেশবাসীর মোট সম্পত্তির বেশি। ভারতের ধনীতম ১০ জনের সম্পত্তি দিয়ে আগামী ২৫ বছর দেশের সব শিশুর স্কুল ও উচ্চশিক্ষার খরচ চালানো সম্ভব। ফাঁস হওয়া প্যান্ডোরা পেপার্সের তথ্য উল্লেখ করে চাঞ্চল্যকর পরিসংখ্যান সামনে এনেছে আন্তর্জাতিক সংস্থাটি। রিপোর্টে বলা হয়েছে, দেশে ও দেশের বাইরে ২০ হাজার কোটি টাকার অঘোষিত সম্পদ রয়েছে ৩৮০ জন ভারতীয়ের।

আর্থিক বৈষম্য তৈরির জন্য সরাসরি কেন্দ্রের কর ও অন্য নীতিকেই কাঠগড়ায় তুলেছে অক্সফাম রিপোর্ট প্রস্তুতকারকেরা। তাদের দাবি, ধনকুবেরদের জন্য ওয়েলথ ট্যাক্স তুলে দেওয়া সহ গত কয়েক বছরে একাধিক পদক্ষেপ করেছে কেন্দ্র। যা ধনীদের সম্পদ আরও বাড়াতে সাহায্য করেছে।