হাত ছাড়ছেন সাংমা? অভিষেকের সঙ্গে বৈঠকের পরই জল্পনা চরমে

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়

টিডিএন বাংলা ডেস্ক : উত্তর প‍ূর্ব ভারতে কি ফের কংগ্রেস ভাঙনের পথে? এমনই জল্পনা উঠেছে তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে প্রবীণ কংগ্রেস নেতা তথা মেঘালয়ের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মুকুল সাংমার বৈঠকের পর।

সংবাদমাধ্যম স‍ূত্রে খবর, মঙ্গলবার ক্যামাকস্ট্রিটে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের দফতরে বৈঠক করেন মুকুল সাংমা। দলের হুইপ অস্বীকার করেই কলকাতায় এসে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে তিনি বৈঠক করেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সাংমা শিবিরের একজন জানিয়েছেন, “ মুকুল সাংমা ব্যক্তিগত কাজে কলকাতায় গিয়েছিলেন। তৃণমূল তাঁকে আমন্ত্রণ জানায়। সেইজন্যই মুকুল অভিষেকের সঙ্গে দেখা করেন। এর সঙ্গে রাজনীতির কোনও সম্পর্ক নেই। এই বৈঠক নেহাতই সৌজন্যমূলক।”

সাংমা শিবিরের ওই ঘনিষ্ঠ নেতা এই বৈঠককে নেহাতই সৌজন্যমূলক বললেও মেঘালয়ের পরিস্থিতি বলছে অন্য কথা। কারণ মুখ্যমন্ত্রী কনরাড কে সাংমার সঙ্গে মুকুল সাংমার বিরোধ ওপেন সিক্রেট। কংগ্রেস ছেড়ে যাওয়া দলের পাঁচ হেভিওয়েট নেতা ফের দলে যোগদান করেন। তাদের মধ্যে রয়েছেন প্রাক্তন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রবার্ট লিংদ। সেই ঘরওয়াপসির জন্য জাঁকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সেই অনুষ্ঠানে গড়হাজির ছিলেন মুকুল সাংমা। স্বাভাবিকভাবেই অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে মুকুল সাংমার এই বৈঠক ঘিরে জল্পনা তৈরি হয়েছে। মুকুল সাংমা মেঘালয়ের রাজনীতিতে বড় নাম। ২০১৮ সাল পর্যন্ত মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন সাংমা। ২০১৮ নির্বাচনে কংগ্রেসের পরাজয়ের পর তিনি সেরাজ্যের বিরোধী দলনেতা হিসাবে কাজ করছেন। রাজনৈতিক মহল বলছে, প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর এই ক্ষোভকেই কাজে লাগাতে চাইছে তৃণমূল।