তপশিলি সম্প্রদায়ের অনুষ্ঠান, তাই ভোট পিছনোর আর্জি পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রীর

ছবি সংগৃহীত

টিডিএন বাংলা ডেস্ক : তপশিলি সম্প্রদায়ের ধর্মীয় গুরু ‘গুরু রবিদাসের জন্ম বার্ষিকী’ ১৬ ফেব্রুয়ারি। আর পাঞ্জাবে ভোট হওয়ার কথা ১৪ ফেব্রুয়ারি এবং ১০ মার্চ ভোটগণনা হওয়ার কথা। এমতাবস্থায় ভোট পিছিয়ে দেওয়ার আবেদন জানিয়ে নির্বাচন কমিশনকে চিঠি লিখলেন পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রীর Charanjit Singh Channi।

তিনি জানিয়েছেন, সেই জন্ম বার্ষিকীর অনুষ্ঠানে প্রতি বছর তপশিলি সম্প্রদায়ের মানুষেরা বেনারস সফর করেন। তপশিলি শ্রেণীর প্রায় ২০ লাখ মানুষ ওই সময় বেনারসে যান। স্বাভাবিক ভাবেই বছরও ১০ থেকে ১৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত অনেকেই সেখানে যাবেন। আর এই কারনেই তিনি ভোট পিছনোর আর্জি জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘ওই সম্প্রদায়ভুক্ত অনেক নাগরিক আমাকে অনুরোধ করেছেন যাতে ভোট কমপক্ষে ছ’ দিন পিছিয়ে দেওয়া হয়। আমারও বিষয়টি যুক্তিসঙ্গত বলে মনে হয়েছে। কারণ, রায়দানের সুযোগ পাওয়া প্রত্যেক নাগরিকের অধিকার। সাংবিধানিক সেই অধিকার প্রয়োগের সুযোগ করে দেওয়াটাও প্রয়োজনীয়। বলে আমার মত।’

একইসঙ্গে তিনি জানান, ‘SC সম্প্রদায়ভুক্ত নাগরিকদের দাবি যেন ১০ ফেব্রুয়ারির পরিবর্তে ১৬ ফেব্রুয়ারি ভোটগ্রহণ পর্ব শুরু করা হয়। তাহলে তাঁরা ধর্মীয় আচার পালন করার পাশাপাশি নিজেদের সাংবিধানিক অধিকার প্রয়োগ করতে পারবেন।’