মারাত্মক বায়ুদূষণে ৪০ শতাংশ ভারতীয়ের আয়ু ৯ বছর কমাবে আশঙ্কা রিপোর্টে

টিডিএন বাংলা ডেস্ক : প্রায় ৪৮০ মিলিয়ন ভারতীয় দেশের বায়বীয়ভাবে দূষিত এলাকায় বসবাস করেন। বায়ূদূষণ ভারতীয়দের দীর্ঘায়ু ৯ বছর পর্যন্ত কমিয়ে দেবে । সাম্প্রতিক এক মার্কিন রিপোর্টে এমনটাই দাবি করেছে৷ শিকাগো বিশ্ববিদ্যালয়ের এনার্জি পলিসি ইন্সটিটিউট বা এপিক এই রিপোর্ট তৈরি করেছে।
উল্লেখ , প্রায় ৪০ শতাংশ ভারতীয়দের দীর্ঘায়ু ৯ বছর পর্যন্ত কমাবে দেশের বায়ুদূষণ ৷ বায়ুতে দূষণমাত্রা আশঙ্কাজনক এমন জায়গাগুলো মধ্য , পূর্ব এবং উত্তর ভারত। সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে উদ্বেগজনক ভাবে এই অংশের দূষণ মাত্রা বৃদ্ধি পেয়েছে , এমনটাই জানিয়েছে এপিক রিপোর্ট ।

উদাহরণস্বরুপ বলা , দেশের পশ্চিম প্রান্তে মহারাষ্ট্র এবং মধ্যের মধ্যপ্রদেশে দূষণমাত্রা অতিসঙ্কটজনক। বায়ু পরিশোধনে গৃহীত কেন্দ্রের ন্যাশনাল ক্লিন এয়ার প্রোগ্রাম বা এনক্যাপ – এর প্রশংসা করা হয়েছে এপিক রিপোর্টে। দূষণমাত্রার নিরিখে বিপজ্জনক শহরের বায়ু শোধনে ২০১৯ সালে এই প্রকল্প নেওয়া হয়েছে। সেই প্রকল্পের প্রশংসায় এপিক রিপোর্টে উল্লেখ গৃহীত লক্ষেই কাজ করছে এনক্যাপ৷ এই প্রকল্প রূপায়ণে দেশের মানুষের সার্বিক আয়ু ১.৭ বছর পর্যন্ত বাড়বে ৷ নয়াদিল্লির জন্য গড়ে ৩.১ বছর পর্যন্ত মানব আয়ু বাড়ার সম্ভাবনা ।

কেন্দ্রীয় পরিবেশ মন্ত্রক সূত্রে খবর , এনক্যাপের কাজ হল ২০২৪ সালের মধ্যে দেশের ১০২ টি দূষিত শহরের দূষণ ২০-৩০ কমানো। শিল্পের বর্জ্য এবং গাড়ির ধোঁয়া নির্গমন রোধ এই প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য। এই উদ্দেশ্য সফলে পরিবহণ – সহ জৈব বর্জ্য জ্বালানি নির্গমন রোধ এবং ধূলিকণা থেকে আসা দূষণ কমানোয় কড়া আইন প্রণয়নে সক্ষম এনক্যাপ ৷ পাশাপাশি দূষণ মাত্রা তদারকিতে এনক্যাপ কার্যকরী। দীর্ঘ পর্যবেক্ষণে দেখা গিয়েছে , নয়াদিল্লি বিশ্বের অন্যতম বায়ু দূষিত জাতীয় রাজধানী। একটি সুইস সংস্থার সমীক্ষায় উঠে এসেছে , নয়াদিল্লির বায়ুদূষণে অনুঘটক হিসেবে কাজ করা কণা ফুসফুসের রোগ বাড়িয়ে তুলছে। নয়াদিল্লির বায়ুতে সেই কণার উপস্থিতি প্রায় ২.৫ পিএম।