ঈদের দিন ভোট গ্রহণের দিন পরিবর্তনের দাবিতে নির্বাচন কমিশনের দরবারে মুসলিম নেতৃত্ব

নিজস্ব সংবাদদাতা, টিডিএন বাংলা, কলকাতা : সামশেরগঞ্জ ও জঙ্গিপুর বিধানসভার ভোট গ্রহণের জন্য ঘোষিত দিনক্ষণের পরিবর্তন সহ একাধিক দাবি নিয়ে রাজ্যের মুসলিম সংগঠনের নেতৃত্ব আজকে ডেপুটি ইলেকশন কমিশনারকে ডেপুটেশন প্রদান করে। সামশেরগঞ্জ ও জঙ্গিপুর বিধানসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী দুজন প্রার্থী করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়ার কারনে ২৬ শে এপ্রিল, ২০২১ অনুষ্ঠিতব্য দুই কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত হয়ে যায়। তারই প্রেক্ষিতে নির্বাচন কমিশন নতুন করে বিজ্ঞপ্তি জারি করে, তাতে দেখা যাচ্ছে কমিশন ওই দুই কেন্দ্রে আগামী ১৩ ই মে ২০২১ নতুন নির্বাচনের দিনক্ষণ নির্ধারণ করেছে। তবে ১৩ ও ১৪ ই মে সম্ভাব্য ঈদ-উল-ফিতরের দিন যা মুসলিম সম্প্রদায়ের উৎসবের দিন তাই নির্বাচনের দিনক্ষণ নির্ধারণ করার সময় এ বিষয়ে খেয়াল রাখার আবেদন জানিয়ে এদিনের ডেপুটেশন প্রদান করা হয়।

ডেপুটেশন তুলে দেওয়ার পরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে জামাআতে ইসলামি হিন্দের পশ্চিমবঙ্গ শাখার সভাপতি মাওলানা আব্দুর রফিক বলেন, “আগামী ১৩ ই মে সম্ভাব্য ঈদ-উল-ফিতরের দিন যা মুসলিম সম্প্রদায়ের উৎসবের দিন। এই ঈদ -উল ফিতরের খুশি শুধু মুসলিম সমাজের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকে না, বরং জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে সমস্ত মানুষ এই খুশিতে সামিল হয়ে থাকে। ফলে এই দিনে নির্বাচনের দিনক্ষণ ঘোষণা করা কোনো ভাবেই সমর্থনযোগ্য হতে পারে না। সেই সাথে তিনি আরও বলেন, নির্বাচন কমিশনের মত একটি দায়িত্বশীল সাংবিধানিক সংস্থা কিভাবে এই দিনে নির্বাচনের দিনক্ষণ নির্ধারণ করলো তা কোনো ভাবেই বোধগম্য নয়। তাই আমরা আজকে নির্বাচন কমিশনকে অবিলম্বে এই তারিখ পরিবর্তন করার জন্য দাবি জানিয়েছি। আমরা আশাকরি নির্বাচন কমিশন দ্রুত এই তারিখ পরিবর্তন করে নতুন দিনক্ষণ ঘোষণা করবে। ”

মাওলানা মারুফ সালাফী শীতলকুচির ঘটনার উল্লেখ করে এই ধরনের ঘটনার যাতে পুনরাবৃত্তি না হয় সেই দাবিও করা হয়েছে বলে জানান। সেই সঙ্গে রাজ্যজুড়ে সাম্প্রদায়িক মেরুকরণের যে চেষ্টা করা হচ্ছে তা রক্ষার্থে যাতে কমিশন কঠোর ভাবে হস্তক্ষেপ করে সেই বিষয়েও দাবি জানানো হয়েছে।

এ ছাড়াও ডেপুটেশন প্রদানকালে উপস্থিত ছিলেন কলকাতা খিলাফত কমিটির নাসির আহমেদ, শিক্ষক সাদাব মাসুম, ডাঃ মশিহুর রহমান, সুজাউদ্দিন আহমেদ প্রমুখ।