আজই ‘গুলাব’-এর ঝাপটা, মঙ্গল ও বুধবার ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস

টিডিএন বাংলা ডেস্ক : ফের দুর্যোগের ভ্রুকুটি। নিম্নচাপ শক্তি বাড়িয়ে গভীর নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে। গতকাল রাতেই সেটি ঘূর্ণিঝড় গুলাব- এ পরিণত হয়েছে। যার জেরে রবিবার থেকে পূর্ব মেদিনীপুরের ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। আজ ও কাল মেদিনীপুরে ঝোড়ো হাওয়ার সর্তকতা থাকছে। সোমবার উত্তর-পূর্ব বঙ্গোপসাগরে তৈরি হতে চলেছে নতুন একটি নিম্নচাপ। বুধবার এ রাজ্যের উপকূল স্পর্শ করবে। ফলে সপ্তাহের শুরুতেই কলকাতাসহ দক্ষিণবঙ্গের দুর্যোগের পূর্বাভাস দিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা।

আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, রবিবার সন্ধ্যা নাগাদ দক্ষিণ ওড়িশার গোপালপুর থেকে অন্ধ্রপ্রদেশের বিশাখাপত্তনমের মাঝামাঝি কলিঙ্গপত্তনমের ওপর দিয়ে স্থলভাগে ঢুকবে গুলাব। গুলাব-এর সরাসরি প্রভাব বাংলায় পড়বে না। তবে এর প্রভাবে শহর ও শহরতলিতে সোমবার থেকেই বৃষ্টির আভাস দিয়েছে হাওয়া অফিস। বলা হয়েছে, মঙ্গল ও বুধবার ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। রবিবার পূর্ব মেদিনীপুরের কয়েকটি জায়গায় ৭-১১ সেন্টিমিটার পর্যন্ত বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। সোমবার বৃষ্টি হতে পারে দুই মেদিনীপুর, দক্ষিণ ২৪ পরগনার কয়েকটি জায়গায়। মঙ্গলবার কলকাতা, ২ মেদিনীপুর, দুই ২৪ পরগনা, হাওড়া ও হুগলিতে বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে। বুধবার কলকাতা, ২ মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম, বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, দুই ২৪ পরগনা, হাওড়া, হুগলি, দুই বর্ধমানে বৃষ্টির কমলা সর্তকতা জারি করা হয়েছে। আজ ৫০-৬০ কিমি বেগে ঝোড়ো হাওয়ার সর্তকতা রয়েছে উত্তর-পশ্চিম ও সংলগ্ন পশ্চিম মধ্য বঙ্গোপসাগরে। সোমবার সর্বোচ্চ ঘন্টায় ৬০ কিমি বেগে পূর্ব মেদিনীপুর উপকূলে ঝড় হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। মঙ্গল ও বুধবার দুই ২৪ পরগনা ও পূর্ব মেদিনীপুরে সর্বোচ্চ ৬৫ কিলোমিটার ও কলকাতাসহ দক্ষিণবঙ্গের অন্যত্র সর্বোচ্চ ৫০ কিমি বেগে ঝড়ের পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাজ্যে ৩ বিধানসভা কেন্দ্রে ভোট। পুজো প্রায় এসে পড়েছে। করোনা আবহে শিল্প ও ব্যবসাতে বিরাট ক্ষতির ধাক্কা। পুজোতে কিছু কেনা বেচার দিকে তাকিয়ে থাকে ব্যবসায়ীরা। সেই সম্ভাবনাতেও দুর্যোগে ধাক্কা খাবে বলে আশঙ্কা তৈরি হয়েছে।