করোনার করাল গ্রাসে দিল্লি এখন ‘মৃত্যুপুরী’, জায়গা নেই, লোকালয়েই গড়ে উঠেছে অস্থায়ী শ্মশান

প্রতীকী ছবি

টিডিএন বাংলা ডেস্ক: করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের প্রভাবে দেশের রাজধানী আজ মৃত্যুপুরী। একদিকে যখন ক্রমবর্ধমান হারে বেড়ে চলেছে করোনার সংক্রমণ তখন পাল্লা দিয়ে বেড়ে চলেছে মৃতের সংখ্যাও। দৈনিক ২,৩০০-এর বেশি মানুষ মারা যাচ্ছে করোনায় আক্রান্ত হয়ে। এখনও পর্যন্ত রাজধানী দিল্লিতে ১৩ হাজারের বেশি মানুষ মারা গেছে। পরিস্থিতি এতটাই খারাপ যে দিল্লিতে লোকালয়ের মধ্যেই গড়ে তোলা হয়েছে অস্থায়ী শ্মশান। এক পাশে নিঝুম বসতি আর তার মাঝখান দিয়ে সরু টিনের দেওয়াল তুলে তৈরি হয়েছে অস্থায়ী শ্মশান। জ্বলছে সারি সারি চিতা। তার মাঝখান দিয়েই নিয়েই নিয়ে আসা হচ্ছে আরো মৃতদেহ।

সম্প্রতি এক সর্বভারতীয় সংবাদ সংস্থার ড্রোন ক্যামেরায় এমনই ভয়াবহ চিত্র ধরা পড়েছে দিল্লির। কোথাও লোকালয়ের মধ্যে বড়ো মাঠে, তো কোথাও গাড়ির পার্কিং লটে তৈরি করা হয়েছে অস্থায়ী শ্মশান। পরিস্থিতি এতটাই শোচনীয় যে এরপরেও দিল্লির মানুষ নিজের প্রিয়জনের দেহ সৎকার করার জায়গা না পেয়ে বাধ্য হয়ে তাঁদের মৃতদেহ ঘরেই রেখে দিচ্ছেন। কোথাও জায়গার অভাব, তো কোথাও কাঠের অভাব। শ্মশানের পাশাপাশি কবরস্থানগুলির অবস্থাও শোচনীয়। কবর দেওয়ার জমির অভাব স্পষ্ট। দিল্লির বাতাস ছেয়ে গেছে শুধুই শোকের কালো ধোঁয়ায়। সেই ধোঁয়ায় চোখ ঝাপসা হয়ে গেলেও করোনায় স্বজন হারানো মানুষগুলো এখন শুধু তাদের প্রিয়জনদের মরদেহ সৎকারের প্রচেষ্টায় ব্যস্ত।

প্রসঙ্গত, শুক্রবার ফের একবার দৈনিক সংক্রমণে নতুন রেকর্ড গড়েছে ভারত। মাত্র চব্বিশ ঘণ্টায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লক্ষ ৩২ হাজার ৭৩০ জন। এর মধ্যে দিল্লিতেই নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ২৬ হাজার ১৬৯ জন। বৃহষ্পতিবার রাত পর্যন্ত পাওয়া তথ্য অনুযায়ী একদিনে ৩০৬ জন করোনা আক্রান্তের মৃত্যু হয়েছে।