কেন্দ্র এবং কৃষক সংগঠনের সদস্যদের বৈঠকের অধরা সমাধান সূত্র; আগামী বৈঠক ১৯ জানুয়ারি

টিডিএন বাংলা ডেস্ক: কেন্দ্রের তিনটি কৃষি আইন প্রত্যাহারের দাবিতে লাগাতার দিল্লির সীমান্তে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে চলেছেন ৪১টি কৃষক সংগঠনের হাজার হাজার সদস্যরা। এই পরিস্থিতিতে আজ কেন্দ্রের সঙ্গে কৃষক সংগঠনগুলির নবম দফার বৈঠকেও সমাধান সূত্র অধরাই রয়ে গেল। প্রত্যেকবারের মতো এদিনও বিজ্ঞান ভবনে আন্দোলনরত কৃষক সংগঠনের সদস্যদের সাথে বৈঠকে বসেন কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমর। তবে এই দিনের বৈঠকে ও কৃষকদের সমস্যার সমাধান হয়নি। আগামী বৈঠক ১৯ জানুয়ারি হবার কথা ঘোষণা করা হয়েছে। বৈঠক চলাকালীন এদিন কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমর কৃষক নেতাদের উদ্দেশ্যে আবেদন জানান যাতে তাঁরা তাদের অবস্থানে নমনীয়তা আনার চেষ্টা করেন। যদিও কৃষক সংগঠনের সদস্যরা তিনটি কৃষি আইন প্রত্যাহারের দাবিতে অনড় রয়েছেন। অন্যদিকে কেন্দ্রের তরফ থেকে বারংবার এই আইনের সংশোধন আনার কথা বলা হচ্ছে।

এদিনের বৈঠকের পর কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমর বলেন, কৃষক ইউনিয়নের সঙ্গে নবম দফার বৈঠক হয়েছে। তিনটি আইনের ওপরই আলোচনা হয়েছে। প্রয়োজনীয় পণ্য আইন সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। কৃষকদের আশঙ্কা নিরসনের প্রচেষ্টাও করা হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

কেন্দ্রীয় কৃষি মন্ত্রী আরো বলেন,”সরকার কংক্রিট প্রস্তাবগুলিকে চূড়ান্ত করতে কৃষক ইউনিয়নকে একটি অনানুষ্ঠানিক দল গঠনের পরামর্শ দিয়েছিল যাতে আনুষ্ঠানিক আলোচনায় এই প্রস্তাবগুলি নিয়ে আলোচনা করা যায়।”

এর পাশাপাশি সুপ্রিম কোর্টের তিনটি কৃষি আইন প্রয়োগের ওপর স্থগিতাদেশ প্রসঙ্গে কেন্দ্রীয় কৃষি মন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমার বলেন, “আমরা শীর্ষ আদালতের আদেশের প্রতি সম্পূর্ণভাবে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ এবং তার সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানাই।” শুধু তাই নয় তিনি বলেন, সরকারকে যদি অনুমতি দেওয়া হয় তাহলে আদালত দ্বারা নিযুক্ত সমিতির কাছে নিজেদের বক্তব্য উপস্থাপন করতেও প্রস্তুত তাঁরা।

অপরদিকে, দিনের বৈঠক শেষে ভারতীয় কৃষক ইউনিয়নের মুখপাত্র সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন,”সরকারের সাথেই আমরা কথা বলবো। দুটি বিষয় আছে। তিনটি কৃষি আইন ফেরত নেওয়া হোক এবং এমএসপির বিষয়ে কথা বলা হোক। আমরা আদালতের কমিটির কাছে যাব না, আমরা সরকারের সাথেই কথা বলবো।”