হেনস্থার শিকার গুগল কর্মীরা! হেনস্থাকারীদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়ার আবেদন জানিয়ে সুন্দর পিচাইকে চিঠি ৫০০ গুগল কর্মীর

ছবি সৌজন্যে লাইফ অ্যাট গুগলের ফেসবুক পেজ।

টিডিএন বাংলা ডেস্ক: সম্প্রতি দ্য নিউইয়র্ক টাইমসে প্রকাশিত হয় গুগলের এক প্রাক্তন কর্মী এবং পেশাদার প্রযুক্তিবিদ এমি নেটফিল্ডের লেখা একটি প্রতিবেদন। ওই প্রতিবেদনে এমিটার গুগোল দপ্তরে হওয়া ভয়াবহ অভিজ্ঞতার কথা বিশদভাবে জানিয়েছেন। কিভাবে গুগল কর্তৃপক্ষকে বারবার জানানো সত্ত্বেও তাকে প্রতিদিন তার হেনস্থা কারীদের সঙ্গে একা কাজ করতে বাধ্য করা হয়েছে সে ব্যাপারে টাইমসের কলামে লিখেছেন তিনি। শুধু তাই নয় তিনি ওই প্রতিবেদনে এও জানিয়েছেন যে গুগল কর্তৃপক্ষকে এ সম্পর্কে জানালে তাঁরা তাঁকে মানসিক চিকিৎসা কিংবা বাড়ি থেকে কাজ করার পরামর্শ বা ছুটি নেওয়ার কথা বলেন কিন্তু হেনস্থাকারীদের বিরুদ্ধে কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হয় না। গুগলের প্রাক্তন ওই কর্মীর এই চিঠি প্রকাশ্যে আসার পরেই গুগলের দপ্তরে হেনস্থার একাধিক ঘটনার কথা উল্লেখ করেহেনস্থা কারীদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য আবেদন জানিয়ে গুগলের সিইও সুন্দর পিচাইকে চিঠি লেখেন ৫০০ গুগল কর্মী।

সুন্দর পিচাইকে লেখা ওই চিঠিতে গুগলের কর্মীরা জানিয়েছেন এর আগেও বহুবার বহু কর্মী হেনস্থার শিকার হয়েছেন। তা সত্ত্বেও গুগল হেনস্থা কারীদের বিরুদ্ধে কোনো পদক্ষেপ নেয়নি। উল্টে তাদের বাঁচাতে তৎপর হয়েছে। এমনকি হেনস্থার ঘটনায় গুগল ছাড়তে বাধ্য হলেও হেনস্থাকারীদের বিপুল অর্থ সাহায্য করেছে গুগল কর্তৃপক্ষ।

এর আগেও ২০১৮ সালে গুগলের প্রায় ২০ হাজার কর্মী যৌন হেনস্থার ঘটনার প্রতিবাদে সরব হয়েছিলেন। তবে এবার কর্মীদের লেখা এই চিঠির জবাবে গুগল জানিয়েছে, কর্মীদের হেনস্থার অভিযোগ দেখাশোনা এবং সমাধানের জন্য তাদের উপযুক্ত পরিকাঠামো আছে। এ ব্যাপারে গুরুত্ব সহকারেই তদন্ত করে তাদের সংশ্লিষ্ট দফতর।