বাংলায় মোদীর ডাক বিরোধী দলনেতাকে, গুজরাতে নয় কেন? প্রশ্ন মোদীর রাজ্যের বিরোধী নেতার

টিডিএন বাংলা ডেস্ক: গতকাল কলাইকুন্ডায় ঘূর্ণিঝড় ইয়াস নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর প্রশাসনিক বৈঠকে ডাক পান রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। অথচ গুজরাটে ঘূর্ণিঝড় তকতের পরে মোদির প্রশাসনিক বৈঠকের ডাকা হয়নি সে রাজ্যের বিরোধী দলনেতা কংগ্রেসের পরেশ ধনানিকে। শুক্রবার ওই প্রশাসনিক বৈঠক মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় উপস্থিত না থাকায় একের পর এক যখন বিজেপির নেতারা সোশ্যাল মিডিয়ায় বাংলার মুখ্যমন্ত্রীর সমালোচনায় সরব হয়েছে ঠিক সেই সময়ই অর্থাৎ শুক্রবার রাতেই প্রশাসনিক বৈঠকের বিরোধী নেতার উপস্থিতি নিয়ে এভাবেই মোদিকে বিঁধে পাল্টা প্রশ্ন করেন গুজরাটের কংগ্রেস নেতা ভারত সোলাঙ্কি।

শুক্রবার রাত সাড়ে দশটা নাগাদ টুইটারে ভারত সোলাঙ্কি লেখেন,”শুনে ভাল লাগছে, ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের ক্ষয়ক্ষতি নিয়ে বৈঠকে বিরোধী দলনেতাকে ডেকেছেন নরেন্দ্র মোদী। কিন্তু গুজরাতে টাউটে পরবর্তী প্রশাসনিক বৈঠকে কিন্তু ডাক পাননি এখানকার বিরোধী দলনেতা।”

মোদির প্রশাসনিক বৈঠক বিরোধী দল নেতাদের উপস্থিতি নিয়ে শুধুমাত্র ভারত সোলাঙ্কি নন তার আগেই সরব হয়েছিলেন বিহারের বিরোধী দলনেতা তেজস্বী যাদব। এ প্রসঙ্গে টুইট করে তেজস্বী লেখেন,”ইয়াসের ক্ষয়ক্ষতি খতিয়ে দেখতে বাংলায় গিয়ে প্রশাসনিক বৈঠকে বিরোধী দলনেতাকে ডেকেছেন প্রধানমন্ত্রী। তা দেখে ভাল লাগছে। কিন্তু যে রাজ্যে বিরোধী দলনেতা বিজেপি-র কেউ নন, সে রাজ্যে কি তাঁরা এই ধরনের প্রশাসনিক বৈঠকে ডাক পাবেন?”

উল্লেখ্য, ইয়াসের তাণ্ডবের পর রাজ্য কতটা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তা জানতে বাংলার পাশাপাশি ওড়িশাতেও গিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সেখানেও প্রশাসনিক বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী। ওই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন উড়িষ্যার মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়ক। বৈঠকে ডাক পেয়েছিলেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতাও, ঘটনাচক্রে যিনি বিজেপি-র। তবে গুজরাটে তকতের তাণ্ডবের পর যে প্রশাসনিক বৈঠক প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি করেছিলেন সেখানে ডাক পাননি গুজরাটের বিরোধী দলনেতা কংগ্রেসের পরেশ ধনানি। বিতর্কের সূত্রপাত এখান থেকেই।