সিউড়ি শহরের রেল যোগাযোগ পুনরায় শুরুর দাবিতে বিক্ষোভ তৃণমূলের

কৌশিক সালুই, টিডিএন বাংলা, বীরভূম: জেলার সদর শহর হলেও রেল মানচিত্রে বরাবরে বঞ্চিত বীরভূমের সিউড়ি। করোনাভাইরাস অতিমারি পরিস্থিতিতে বিভিন্ন প্রান্তে রেল পরিষেবা চালু হলেও এখনো সিউড়ি রেল স্টেশন বঞ্চিত। সিউড়ি শহরের প্রতি রেল এর বিমাতৃসুলভ আচারণ এর প্রতিবাদে রবিবার সাত দফা দাবি নিয়ে স্মারকলিপি প্রদান তৃণমূল কংগ্রেসের। কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন বীরভূম জেলা পরিষদের সভাধিপতি বিকাশ রায় চৌধুরী সিউড়ী শহর তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি শেখ সফি, পুরসভার প্রশাসনিক বোর্ডের অন্যতম সদস্য কাজী ফোর্জউদ্দিন সহ অন্যান্য কর্মীরা।
করোনাভাইরাস মহামারীর পরিস্থিতিতে বিভিন্ন জায়গায় রেল যোগাযোগ চালু হলেও বীরভূমের সদর শহর সিউড়ি এখনো বঞ্চিত বলে অভিযোগ তৃণমূল কংগ্রেসের। কলকাতা সহ রাজ্যের বেশ কিছু জায়গার সঙ্গে সিউড়ি রেল স্টেশনের সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ যোগাযোগ এখনো বিচ্ছিন্ন। সাঁইথিয়া অন্ডাল রুটের মধ্যে এই সিউড়ি রেল স্টেশন। বর্তমানে মাত্র দুটি লোকাল ট্রেন চলছে। বনাঞ্চল ট্রেনটি চললেও সিউড়ি স্টেশনে স্টপেজ নেই। সিউড়ি শহরের সঙ্গে রেল যোগে হাওড়ার সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ ময়ূরাক্ষী ফাস্ট প্যাসেঞ্জার এবং হুল এক্সপ্রেসের কিন্তু ওই ট্রেন দুটি এখনো চালু করা হয়নি। মালদা টাউন দীঘা একটি ট্রেন চললেও সেই ট্রেনের স্টপেজ সিউড়ি রেল স্টেশন নেই। সিউড়ি বোলপুর রাজ্য সড়কের হাটজন-বাজারে রেলের লেভেল ক্রসিং ওভার ব্রিজ নির্মাণের কাজ চলছে। অভিযোগ কাজের গতি অত্যন্ত ধীরগতির। ব্রিজ সংলগ্ন রাস্তাটির বেহাল দশা হয়ে পড়েছে। ফলে যানবাহন চলাচল নিয়ে মানুষ খুব অসুবিধায় পড়েছে বলে দাবি তৃণমূলের। প্রভৃতি সাত দফা দাবি নিয়ে সেদিন রেলস্টেশনে বিক্ষোভ দেখায় তৃণমূল কংগ্রেস এবং স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। জেলা পরিষদের সভাধিপতি বিকাশ রায় চৌধুরী বলেন,” সিউড়ি সদর শহর হলেও রেল মানচিত্রে বরাবর বঞ্চিত। সব জায়গার সঙ্গে রেল যোগাযোগ শুরু হলেও সিউড়ি স্টেশনে সেটা হয়নি। স্টেশনের যাত্রী স্বাচ্ছন্দ এবং দ্রুত ওভার ব্রিজ নির্মাণ শেষ করার দাবি জানিয়েছি আমরা। ওই লাইনের সমস্ত ট্রেন চালু এবং বেশ কিছু ট্রেনের স্টপেজ দেওয়ার দাবি করছি আমরা”। রেলের আসানসোল ডিভিশনের মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিক গৌতম সরকার বলেন,” বর্তমান পরিস্থিতিতে ধীরে ধীরে রেল যোগাযোগ স্বাভাবিক হচ্ছে। ওই রুটে খুব তাড়াতাড়ি স্বাভাবিক রেল পরিষেবা হয়ে যাবে। উনাদের যে দাবি আছে সে দাবি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠিয়ে দেওয়া হবে এবং রেল সুবিবেচনা করবে”।