বাংলায় বিনিয়োগে আগ্ৰহী দেশি-বিদেশী শিল্পপতিরা, এসেছে বিপুল বিনিয়োগের প্রস্তাব

নিজস্ব সংবাদ, টিডিএন বাংলা: সদ্য সমাপ্ত পশ্চিমবঙ্গ সরকারের উদ্যোগে আয়োজিত ২ দিনের বাণিজ্য সম্মেলনে বিপুল লগ্নির প্রস্তাব এসেছে দেশি-বিদেশী শিল্পপতিদের কাছ থেকে। গত বছরের তুলনায় এই বছর অনেক বেশি বিনিয়োগ প্রস্তাব এসেছে এবারের বিশ্ববঙ্গ বানিজ্য সম্মেলনে। প্রায় ৪ লক্ষ কোটি বিনিয়োগের প্রস্তাব মিলেছে বলে খবর। বিশ্ববঙ্গ বানিজ্য সম্মেলনের শেষ দিনে এক ঘোষনায় রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, এই সম্মেলন থেকে স্বাক্ষরিত হয়েছে নতুন করে আরও ১০৮টি মউ।

এই বানিজ্য সম্মেলনে বক্তব্য দিতে গিয়ে বাংলার ভূয়সী প্রশংসায় ভরিয়ে তোলেন মুকেশ আম্বানি সহ অন্যান্য শিল্পপতিরা। রাজ্যে আগামী ৩ বছরে আরও ২০ হাজার কোটি লগ্নির কথা ঘোষণা করেন  রিলায়েন্স পোস্টের কর্ণধার মুকেশ আম্বানি। অন্যদিকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, এই রাজ্যে একাধিক শিল্পপতি বিনিয়োগ করতে আগ্ৰহ প্রকাশ করেছেন। এমন ভাবে পশ্চিমবঙ্গের শিল্প পরিকাঠামো করে তোলা হয়েছে যাতে শিল্পপতিরা আকৃষ্ট হন। পর্যটন থেকে শিক্ষা-স্বাস্থ্য সর্বক্ষেত্রে বিনিয়োগ আসছে। তিনি আরও বলেন, “বিশ্বে যখন বেকারত্ব বেড়েছে, তখন পশ্চিমবঙ্গে বেকারত্বের হার অনেক কমেছে।”

যদিও পশ্চিমবঙ্গ সরকারের এই বিশ্ববঙ্গ বানিজ্য সম্মেলন ও তার প্রাপ্তি নিয়ে সমালোচনায় সরব হয়েছে বিরোধীরা। বিরোধীরা বিজেপি ঘনিষ্ঠ শিল্পপতি বলে অভিহিত করেন যাকে সেই মুকেশ আম্বানীর সমালোচনা করে বিজেপি সাংসদ দিলীপ ঘোষ বলেন ‘তেল মারতে এসেছেন’। বিনিয়োগ সংক্রান্ত তথ্যকে ফাঁকা বুলি বলেও কটাক্ষ করেছে বিরোধীরা। ২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচনকে সামনে রেখেই এই বিশ্ববঙ্গ বানিজ্য সম্মেলন বলেও অভিযোগ করেছেন অনেকেই। এই বিপুল বিনিয়োগের প্রস্রাব কতটা বাস্তবায়ীত তা নিয়েও সন্দেহ প্রকাশ করেছেন বিরোধীদলীয় নেতারা।

অন্যদিকে শাসকদলের পক্ষ থেকে পাল্টা বিরোধীদের সমালোচনা করে বলা হয়েছে, পশ্চিমবঙ্গে বিনিয়োগে বান ডাকলেও কটাক্ষ করতে ছাড়ছে না বিরোধীরা। তারা আসলে রাজ্যের উন্নয়ন নয় রাজনীতি করতে ব্যস্ত বলে পাল্টা অভিযোগ করেছেন শাসকদলের নেতারা।