কিশোরকে অপহরণ করে খুন করার অপরাধে যাবজ্জীবন সাজা পাঁচ ব্যক্তির

প্রতীকী ছবি

নিজস্ব সংবাদদাতা, টিডিএন বাংলা, বীরভূম: এক কিশোরকে অপহরণ করে খুন করার অপরাধে যাবজ্জীবন সাজা পাঁচ ব্যক্তির। বৃহস্পতিবার বীরভূমের সিউড়ি ফাস্ট ট্রাক আদালতের বিচারক এই সাজার কথা ঘোষণা করেন। পাশাপাশি প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ছয় মাসের জেল ঘোষণা করেন বিচারক। ৫ সাজা প্রাপ্ত ব্যক্তির মধ্যে এখনও একজন পলাতক বলে জানা গিয়েছে।

আদালত সূত্রে জানা গিয়েছে দোষী সাব্যস্ত ব্যক্তিরা হলেন রবিউল শেখ ওরফে কটা, রহমান শেখ, বরকত শেখ, কাজল শেখ এবং পলাতক অপরাধী হলেন ইকবাল শেখ। প্রত্যেক সাজা প্রাপ্ত ব্যক্তির বাড়ি সোতসাল গ্রামে। বৃহস্পতিবার বীরভূমের সিউড়ির দ্রুত মামলা সম্পন্ন কারি দায়রা আদালতের বিচারক এই যাবজ্জীবন সাজার কথা ঘোষণা করেন। এছাড়া প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানা এবং অনাদায়ে আরো ছয় মাসের জেল ঘোষণা করেন বিচারক। ২০১৫ সালের ১৭ ই মে বাড়ি থেকে বেরিয়ে নিখোঁজ হয়ে যান বীরভূমের মহম্মদ বাজার থানার সোতসাল গ্রামের বাসিন্দা আসাতুল্লাহ শেখের ছেলে ১৩ বছর বয়সী নয়ন শেখ। ঘটনার তিনদিন পর কুড়ি মে পার্শ্ববর্তী সেকেন্ডা গ্রামের ক্যানেলের ঝোপ থেকে নয়নের পচা গলা মৃতদেহ উদ্ধার হয়। ওই ঘটনায় গ্রামের কয়েক জনের বিরুদ্ধে মহম্মদ বাজার থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়। ১৮ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণের পর বিচারক ৫ জনকে দোষী সাব্যস্ত করে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের সাজা শুনিয়েছেন। প্রণয়ঘটিত কারণে অপহরণের পর খুন করা হয়েছিল কিশোরকে।