‘অভিবাসী মুসলিমরা জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণ না করলে কামাখ্যা মন্দিরের জমিও জবরদখল হয়ে যেতে পারে ’, অসমের মুখ্যমন্ত্রীর মন্তব্যের পাল্টা AIUDF-র

ছবি সৌজন্যে: হিমন্ত বিশ্ব শর্মার ফেসবুক পেজ

টিডিএন বাংলা ডেস্ক : মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নিয়েছেন মাসখানেক আগে। এর মধ্যেই বিতর্কে অসমের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা।

অসমে মুসলিম সম্প্রদায়ের শরণার্থীদের পরিবার পরিকল্পনায় মন দিতে বললেন তিনি, যাতে জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণে থাকে। অসমের মুখ্যমন্ত্রীর দাবি, এর ফলে জবরদখলের মতো সামাজিক দুষ্কর্ম কমবে।
তিনি আরও বলেন, মুসলিমরা জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণ না করলে কামাখ্যা মন্দিরের জমিও জবরদখল হয়ে যেতে পারে। মুখ্যমন্ত্রিত্বের সবে একমাস পূর্ণ হওয়ার পর গুয়াহাটিতে এক সাংবাদিক সম্মেলনে এই বক্তব্য পেশ করলেন তিনি। জবরদখল নিয়ে সরকার কী পদক্ষেপ নিচ্ছে, সেই প্রশ্নের উত্তরেই মুসলিম শরণার্থীদের প্রতি এই বার্তা।

অসমে মুখ্যমন্ত্রীর মন্তব্যে ক্ষোভ প্রকাশ করেন বিরোধীরা। AIUDF-র সাধারণ সম্পাদক আনিমূল ইসলাম বলেন, মুখ্যমন্ত্রী বিশেষ একটি সম্প্রদায়কে আঘাত করে এই মন্তব্য করেছেন। সরকারের তরফে যখন জন্মনিয়ন্ত্রণ নীতি অনুসরণ করা হলেও আমরা বিরোধীতা করিনি। জন্মনিয়ন্ত্রণ নীতি অনুসরণ করছেন না অনেকে। এর কারণ, অশিক্ষা। শিক্ষার হার বাড়াতে অসম সরকারকেই সচেষ্ট হতে হবে।

মুখ্যমন্ত্রীর এই মন্তব্যে প্রবল আপত্তি জানিয়েছে অসমের অন্যতম বিরোধী দল AIUDF। তাঁর বক্তব্য, মুখ্যমন্ত্রী এভাবে নির্দিষ্ট একটি ধর্মকে টার্গেট করতে পারেন না।