মায়ানমারের ওপর নতুন নিষেধাজ্ঞা যুক্তরাজ্যের , অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক চাপ সৃষ্টি

ছবি : সংগৃহীত

টিডিএন বাংলা ডেস্ক:  সেনা অভ্যুত্থানকরী মায়ানমারের সেনা কর্মকর্তাদের ওপর নতুন করে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করছে যুক্তরাজ্য। নতুন এই পদক্ষেপের আওতায় সেনাপ্রধান মিন অং হ্লাইং ছাড়াও রয়েছেন সেনা সরকার গঠিত স্টেট অ্যাডমিনিস্ট্রেশন কাউন্সিলের আরও পাঁচ সদস্য।

মায়ানমারের সেনাবাহিনী সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে ব্রিটিশ কোম্পানিগুলো আর ব্যবসা করবে না বলেও জানায় , সংবাদসংস্থা আল জাজিরার এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

রাখাইনে মুসলিম রোহিঙ্গাদের ওপর বর্বর নির্যাতনের দায়ে মায়ানমারের সেনাপ্রধান মিন অং হ্লেইংসহ বেশ কয়েকজন শীর্ষ সেনা কর্মকর্তার ওপর আগে থেকেই নিষেধাজ্ঞা ছিল যুক্তরাজ্যের।

যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডোমিনিক রাব সোমবার এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন। মায়ানমারের রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন দুই প্রতিষ্ঠান টিম্বার এন্টারপ্রাইজ ও মিয়ানমার পার্ল এন্টারপ্রাইজের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হবে। প্রতিষ্ঠান দুটোর যুক্তরাজ্যে থাকা সব সম্পদ বাজেয়াপ্ত করা হবে। এই দুই প্রতিষ্ঠান থেকে মায়ানমারের সামরিক শাসক লাখ লাখ রাজস্ব আয় করে।

যুক্তরাজ্য সামরিক অভ্যুত্থনের মাধ্যমে ক্ষমতায় আসা মায়ানমারের সামরিক জান্তা শাসককে যে কোনো ধরনের অর্থনৈতিক সহযোগিতা করবে না নতুন এই নিষেধাজ্ঞা সে ব্যাপারেই পরিস্কার বার্তা দিয়েছে।

গত তিন সপ্তাহ ধরে মায়ানমারের বিভিন্ন শহরে প্রতিদিনই সেনাশাসনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ-ধর্মঘট চলছে। সে ধারাবাহিকতা বজায় রেখে বৃহস্পতিবারও ইয়াঙ্গুনের রাস্তায় বিক্ষোভের প্রস্তুতি নেয় শিক্ষার্থীরা। তবে বিক্ষোভকারীদের সবাই সমবেত হওয়ার আগেই প্রায় সেনাবাহিনীর প্রায় এক হাজার সমর্থক সমাবেশ শুরু করে। এক পর্যায়ে পরিস্থিতি গুরুতর রূপ ধারণ করে এবং শহরের বিভিন্ন জায়গায় সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ে।