আরবি, সাংবাদিকতা ও রসায়ন পড়ানোর দাবিতে মুর্শিদাবাদ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের সঙ্গে সাক্ষাৎ এসআইও’র

টিডিএন বাংলা ডেস্ক: মুর্শিদাবাদ বিশ্ববিদ্যালয়ে আরবি, রসায়ন ও সাংবাদিকতা পড়ানোর দাবি নিয়ে উপাচার্য ডঃ সুজাতা বাগচীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করে এসআইও। ১৪ টি বিষয়ে পড়াশোনা শুরুর জন্য উচ্চ শিক্ষা দপ্তর থেকে উপাচার্যের কাছে নোটিশ পাঠানাে হয়েছে, যদিও আরবি ভাষা, রসায়ন ও সাংবাদিকতার মতো বিষয় স্থান পায়নি। এ দিন উপাচার্যের সঙ্গে সাক্ষাতে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মোঃ সাহাবুদ্দিন মন্ডল বলেন, “মুর্শিদাবাদ বিশ্ববিদ্যালয়ে আরবি ভাষা এবং সাহিত্য পড়ানো অত্যন্ত জরুরি।” একই সঙ্গে এসআইও এর পক্ষ থেকে সাংবাদিকতা ও রসায়নের মত বিষয়কে এই শিক্ষাবর্ষ থেকেই পড়ানো শুরু করার জন্য দাবি করা হয়। মুর্শিদাবাদ জেলার এসআইও’র সভাপতি মোঃ কুতুবউদ্দিন বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার জন্য দীর্ঘ আন্দোলনের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে বলেন, “আমরা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার জন্য যেমন অগ্রণী ভূমিকা নিয়েছি, তেমনই বিশ্ববিদ্যালয়ে যথাযথ পঠনপাঠনের জন্যও সোচ্চার হবো।” এসআইও এর পক্ষ থেকে আরো দাবি জানানো হয়, মুর্শিদাবাদে পূর্ণাঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করতে হবে এবং সেটা অবশ্যই মুর্শিদাবাদের কেন্দ্রস্থলে হতে হবে। উল্লেখ্য যে, মুর্শিদাবাদ বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথম শিক্ষাবর্ষের জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে বাংলা,ইংরেজির পাশাপাশি সংস্কৃত ভাষাও স্থান পেয়েছে। অথচ আরবি ভাষা স্থান পায়নি। মুর্শিদাবাদ মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ এলাকা, অথচ সেখানে সংস্কৃত ভাষা শিক্ষার ব্যবস্থা থাকলেও আরবি ভাষা শিক্ষার ব্যবস্থা কেন থাকবে না ? তা নিয়ে স্বাভাবিকভাবেই মুসলিম ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে দেখা দিয়েছে অসন্তোষ। পঠনপাঠনের তালিকায় আরবি ভাষা সংযুক্ত করার দাবি উঠেছে বিভিন্ন মহলে। মুসলিম সংগঠনগুলি শিক্ষা দপ্তরের এ সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানিয়েছে। তাদের বক্তব্য মুর্শিদাবাদের অধিকাংশ কলেজে আরবি ও ধর্মতত্ত্ব পড়ানো হয়। তাহলে মুর্শিদাবাদ বিশ্ববিদ্যালয়ে কেন হবেনা ?