বাঁকুড়ায় মানব পাচার চক্র! গ্রেপ্তার অধ্যক্ষসহ ৮ জন

টিডিএন বাংলা ডেস্ক: বাঁকুড়া জেলার সদর থানার কালপাথর এলাকার জহর নবোদয় বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষসহ ৮ জনকে ‘শিশু পাচার চক্রে’র সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে গ্রেফতার করল পুলিশ। এই ঘটনায় ওই এলাকাতে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, রবিবার দুপুরে জহর নবোদয় বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ কমল কুমার রাজোরিয়া ২ জন শিশুকে জোর করে একটি মারুতি ভ‍্যানে তুলছিলেন। ঘটনা কয়েকজন স্থানীয়র নজরে পরে যেতেই অধ্যক্ষ কমল কুমার রাজোরিয়া পলায়ন করেন। স্থানীয়রা ওই মারুতি ভ‍্যান থেকে ৪ জন শিশুসহ ২জন মহিলাকে উদ্ধার করেছে বলে খবর। এই ঘটনার খবর যায় স্থানীয় থানায়, ঘটনাস্থলে পৌঁছায় পুলিশ। এরপর শুরু হয় তদন্ত। জানা গিয়েছে অধ্যক্ষ কমল কুমার, একই স্কুলের একজন শিক্ষিকাসহ মোট ৮ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এর মধ্যে ৩ জনকে ৭ দিনের পুলিশি হেফাজতে এবং অন্যদের ২ আগষ্ট পর্যন্ত জেলহেফাজতে পাঠানো হয়েছে। পুলিশ সূত্রে জানানো হয়েছে, অধ্যক্ষ কমল কুমারকে গ্রেফতার করার পর জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ জানতে পারে একটি ‘শিশু পাচার চক্রে’র কথা। এরপরই শুরু হয় গ্রেপ্তারি। কুমারের থেকে জানা গিয়েছে তার স্কুলেরই একজন সন্তানহীন শিক্ষিকাকে একটি শিশু বিক্রি করেছিলেন তিনি। পুলিশ তার বাড়ি ও কোয়ার্টারে তল্লাশি অভিযান চালিয়ে ৫ জন শিশুকে উদ্ধার করেছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে আরও জানা গিয়েছে অধ্যক্ষ কমল কুমার বিভিন্ন এলাকা থেকে শিশু সংগ্রহ করে রাজস্থানের প্রচার করতেন। মূলত নিঃসন্তান দম্পতিরা হলেন তাঁর প্রধান ক্রেতা। এ ঘটনায় হতবাক শিক্ষিতমহল। যে শিক্ষকদের দায়িত্ব ছিল সমাজ গড়ার। যাদের শিশুদের জীবন গড়ার কারিগর মনে করে সমাজ। আজ তারাই কিনা শিশু পাচার চক্রে’র পরিচালনা করছে। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, এই শিশু পাচার চক্রের সঙ্গে কারা জড়িত এবং কিভাবে এই চক্রো জাল বিস্তার করেছিল এসব বিষয়ে তদন্ত শুরু হয়েছে। একই সঙ্গে জানানো হয়েছে, উদ্ধারকৃত শিশুদের উপর যৌন হেনস্থা করা হতো কিনা তা জানতে মেডিকেল পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে।