তারাপীঠ বিকাশ পরিষদ থেকে ইস্তফা দিলেন তৃণমূল সাংসদ ও অভিনেত্রী শতাব্দী রায়

ছবি সৌজন্যে শতাব্দী রায়ের ফেসবুক পেজ।

টিডিএন বাংলা ডেস্ক: সামনেই পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচন। তার আগেই একের পর এক বড়োসড়ো পরিবর্তন দেখতে পাওয়া যাচ্ছে শাসকদল তৃণমূলের অভ্যন্তরে। এই পরিস্থিতিতে এবার তারাপীঠ বিকাশ পরিষদ থেকে ইস্তফা দিলেন তৃণমূল সাংসদ ও অভিনেত্রী শতাব্দী রায়। বীরভূমের সংসদ শতাবদিরায় কিছুক্ষণ আগেই নিজের ইস্তফা পত্র জমা দিয়েছেন। বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, আগামীকাল তিনি দিল্লির উদ্দেশ্যে রওনা হতে পারেন। এ প্রসঙ্গে ধারণা করা হচ্ছে, যে দিল্লিতে গিয়ে তিনি বিজেপির সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে পারেন এবং খুব শীঘ্রই বিজেপিতে যোগদান করে বিজেপির হয়ে বাংলায় কাজ শুরু করতে পারেন।

প্রসঙ্গত, গতকাল শতাব্দী রায়ের ফেসবুক ফ্যান পেজ থেকে একটি পোস্ট প্রকাশ্যে আসে যেখানে লেখা হয়েছে,”বীরভূমে আমার নির্বাচন কেন্দ্রের মানুষের প্রতি-২০২১ খুব ভালো কাটুক। সুস্থ থাকুন, সাবধানে থাকুন।এলাকার সঙ্গে আমার নিয়মিত নিবিড় যোগাযোগ। কিন্তু ইদানিং অনেকে আমাকে প্রশ্ন করছেন কেন আমাকে বহু কর্মসূচিতে দেখা যাচ্ছে না। আমি তাঁদের বলছি যে আমি সর্বত্র যেতে চাই। আপনাদের সঙ্গে থাকতে আমার ভালো লাগে। কিন্তু মনে হয় কেউ কেউ চায় না আমি আপনাদের কাছে যাই। বহু কর্মসূচির খবর আমাকে দেওয়া হয় না। না জানলে আমি যাব কী করে? এ নিয়ে আমারও মানসিক কষ্ট হয়। গত দশ বছরে আমি আমার বাড়ির থেকে বেশি সময় আপনাদের কাছে বা আপনাদের প্রতিনিধিত্ব করতে কাটিয়েছি, আপ্রাণ চেষ্টা করেছি কাজ করার, এটা শত্রুরাও স্বীকার করে। তাই এই নতুন বছরে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়ার চেষ্টা করছি যাতে আপনাদের সঙ্গে পুরোপুরি থাকতে পারি। আপনাদের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ। ২০০৯ সাল থেকে আপনারা আমাকে সমর্থন করে লোকসভায় পাঠিয়েছেন। আশা করি ভবিষ্যতেও আপনাদের ভালোবাসা পাব। সাংসদ অনেক পরে, তার অনেক আগে থেকেই শুধু শতাব্দী রায় হিসেবেই বাংলার মানুষ আমাকে ভালোবেসে এসেছেন। আমিও আমার কর্তব্য পালনের চেষ্টা করে যাব।যদি কোনো সিদ্ধান্ত নিই আগামী ১৬ জানুয়ারি ২০২১ শনিবার দুপুর দুটোয় জানাব।”

শতাব্দী রায়ের ফ্যান ক্লাবের এই ফেসবুক পোস্টটি প্রকাশ্যে আসার পর থেকেই তোলপাড় হতে শুরু করেছে রাজ্য রাজনীতি। তারপরই আজ তারাপীঠ বিকাশ পরিষদ থেকে শতাব্দী রায়ের এহেন ইস্তফা দেওয়ার পর থেকে রাজনৈতিক মহলে জল্পনা শুরু হয়েছে তাঁর বিজেপিতে যোগদান করার বিষয় নিয়ে।