আইএসএফ সমর্থক ছাত্রকে বেধড়ক মারধরের অভিযোগ উঠল ভাঙর কলেজের তৃণমূল ছাত্র পরিষদের বিরুদ্ধে

টিডিএন বাংলা ডেস্কঃ আইএসএফ সমর্থক ছাত্রকে বেধড়ক মারধরের অভিযোগ উঠলো ভাঙড় মহাবিদ্যালয়ের তৃণমূল ছাত্র পরিষদের বিরুদ্ধে। সূত্রের খবর, আহত ছাত্রকে ভর্তি করা হয়েছে কলকাতার চিত্তরঞ্জন মেডিকেল হাসপাতালে। এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে এফআইআর দায়ের করা হয়েছে বলে খবর।

অবশ্য এই অভিযোগ স্বীকার করেনি তৃণমূল ছাত্র পরিষদ। এটি সম্পুর্ন মিথ্যা ও ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দিয়েছেন তারা। অভিযোগ সাকিল আনসারী নামের ওই আইএসএফ সমর্থক ছাত্র বৃহস্পতিবার কলেজে ভর্তি সংক্রান্ত কাজে এসেছিলেন। তখন তাঁকে ইউনিয়ন রুমে ডেকে নিয়ে গিয়ে চলে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ। কিল, চড়, ঘুষির পাশাপাশি চেয়ার দিয়েও মারাধরের অভিযোগ উঠেছে তৃণমূল ছাত্র পরিষদ সদস্যদের বিরুদ্ধে। আহত অবস্থায় প্রথমে স্থানীয় নলমুড়ি ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয় আইএসএফ সমর্থক পড়ুয়া সাকিল আনসারীকে। পরে তাঁকে চিত্তরঞ্জন মেডিকেল হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। বর্তমানে তিনি সেখানে চিকিৎসাধীন। ঘটনায় এফআইআর দায়ের করা হয়েছে ভাঙড় থানায়। অভিযোগ খতিয়ে দেখছে পুলিশ। তবে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ভাঙড় মহাবিদ্যালয়ের তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মহম্মদ ওয়াসিম। তিনি বলেন, “ঘটনার সঙ্গে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের কোনো সম্পর্ক নেই। এমনকি মারধরের ঘটনাও ঘটেনি। শুনেছি লাইনে দাঁড়ানোকে কেন্দ্র করে একটি ঝামেলা হয়েছে সাধারণ ছাত্রদের সঙ্গে।” উল্লেখ্য যে, বুধবার ঈদের দিনে অনলাইন ক্লাস করে বিতর্কে জড়িয়েছিলেন শিক্ষা বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক সুজিত কুমার পাত্র। যা নিয়ে সমালোচনার ঝড় ওঠে নেট দুনিয়ায়। সৃষ্টি হয় বিতর্ক। শিক্ষকের পর ছাত্র ইউনিয়ন, ফের বিতর্কের কেন্দ্রে সেই ভাঙড় কলেজ।