নবীকে নিয়ে মন্তব্যের জেরে ৬ বছরের জন্য দল থেকে নূপুর শর্মাকে বরখাস্ত করল বিজেপি

টিডিএন বাংলা ডেস্কঃ বিজেপি মুখপাত্র নূপুর শর্মাকে ৬ বছরের জন্য দল থেকে সাসপেন্ড করেছে। বিজেপির তরফে জানানো হয়েছে, নবী মহম্মদকে নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করার জেরেই নূপুর শরমার বিরুদ্ধে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। গেরুয়া শিবিরের দাবি, বিজেপি সমস্ত ধর্ম এবং তাদের উপাসকদের সম্মান করে। বিজেপির সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অরুণ সিং একটি চিঠি দিয়ে জানিয়েছেন, বিজেপি এমন একটি দল যা সকল ধর্মকে সম্মান করে।
নুপুর শর্মা ছাড়াও দিল্লির মুখপাত্র নবীন জিন্দালের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নিয়েছে বিজেপি। জিন্দালকেও দল থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে। উল্লেখ্য, নূপুরের নবি সংক্রান্ত ওই বিতর্কিত মন্তব্যকে সমর্থন করে জিন্দাল একটি ট্যুইট করেছিলেন। বিজেপির তরফে জারি করা একটি বিবৃতিতে বলা হয়েছে, স্বাধীনতার ৭৫তম বছরে এক ভারত, শ্রেষ্ঠ ভারতের চেতনা ক্রমাগত শক্তিশালী হচ্ছে। আমাদের প্রথম অগ্রাধিকার অখন্ড ভারত এবং উন্নয়ন। দেশের ঐক্য যাতে বজায় থাকে সেজন্য আমরা নিরন্তর কাজ করে যাচ্ছি। দলের পক্ষ থেকে জারি করা ওই বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, ভারতের হাজার বছরের ইতিহাসে প্রতিটি ধর্মেরই বিকাশ ঘটেছে। যে কোনো ধর্মের কোনো ধর্মাবলম্বী ব্যক্তির অবমাননার তীব্র নিন্দা করে বিজেপি। দল এমন আদর্শের ঘোর বিরোধী যা কোন সম্প্রদায় বা ধর্মকে অবমাননা করে। বিজেপি এমন কোনো আদর্শ প্রচার করে না।
প্রসঙ্গত, নবীকে নিয়ে ওই মন্তব্যের পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাঁকে ধর্ষণ এবং হত্যার হুমকি দেওয়া হয়েছিল জানিয়ে দিল্লি পুলিশের কাছে অভিযোগও করেছিলেন নূপুর শর্মা। শুধু তাই নয়, নূপুর শর্মার ওই বক্তব্যের প্রতিবাদের জেরে সম্প্রতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে কানপুর। পয়গম্বরের বিরুদ্ধে ওই মন্তব্যের প্রতিবাদে দোকানপাট বন্ধ রাখার আহ্বান জানায় মুসলিম সংগঠনগুলি। একইসঙ্গে, রাজস্থানের বুন্দির মাওলানা মুফতি নাদিম নূপুর শর্মার বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে বলেন যদি কোনও ব্যক্তি নবী সাহেবের বিরুদ্ধে মন্তব্য করে, তার চোখ উপড়ে নেওয়া হবে এবং হাত ভেঙে দেওয়া হবে। কালেক্টরেট অফিসের বাইরে জনতার উদ্দেশে নাদিম বলেন, যদি নবীর বিরুদ্ধে মন্তব্য করা বৈধ হয়, তাহলে আমরা সেই আইনের বিরোধিতা করছি।