দেরিতে পরীক্ষা হলেও হাই মাদ্রাসা, আলিম, ফাজিলের ফল বের হবে উচ্চ মাধ্যমিকের সঙ্গেই

নিজস্ব সংবাদদাতা, টিডিএন বাংলা, কলকাতা: সরকারি মাদ্রাসায় পরীক্ষা হতে পারে জুলাই আগস্টে। এমনটাই জানিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গ মাদ্রাসা শিক্ষা পর্ষদের সভাপতি ড: আবু তাহের কামরুদ্দিন। তবে কবে কোন বিষয়ের পরীক্ষা, ঠিক কত তারিখে,কখন পরীক্ষা শুরু হবে তা জানেনা ছাত্রছাত্রীরা।
অন্যবার এতদিন পরীক্ষার ফল বেরিয়ে গেছে। কিন্তু এবার মহামারি করোনার জন্য পরীক্ষা নিতে পারেনি কোনও প্রতিষ্ঠান। এরই মধ্যে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কিছুদিন আগে জানিয়েছেন, নিজ নিজ স্কুলে জুনে উচ্চ মাধ্যমিক ও আগস্টে মাধ্যমিক পরীক্ষা হবে। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী মাদ্রাসা শিক্ষা পর্ষদের ছাত্রছাত্রীদের পরীক্ষা কোন মাসে হবে তা বলেননি। ওয়েলফেয়ার পার্টির রাজ্য সম্পাদক শাজাহান আলি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন,গত ২৭ মে মুখ্যমন্ত্রী এ বছরের মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা যথাক্রমে আগস্ট এবং জুলাই মাসে হবে বলে ঘোষণা করেছেন। কিন্তু আশ্চর্যজনকভাবে হাই মাদ্রাসা,আলিম, ফাযিল পরীক্ষার কোন মাস উল্লেখ করা হয়নি। ফলে মাদ্রাসা বোর্ডের পরীক্ষার্থী সহ অভিভাবকরা পরীক্ষার ব্যাপারে এখনও অন্ধকারে রয়েছেন। গত দশ বছর যাবৎ এই মাদ্রাসা দফতরটি মুখ্যমন্ত্রীর অধীনে ছিল। তিনি কি ভাবে বিষয়টি এড়িয়ে যেতে পারেন! ইতি পূর্বে বহুবার গরমের ছুটি বা অন্যান্য বিষয়ে নির্দেশিকা প্রদানের ক্ষেত্রেও মাদ্রাসাকে গুরুত্ব দেওয়া হয়নি। অথচ এটি সাধারণ শিক্ষাব্যবস্থার সমতুল একটি শিক্ষা ব্যবস্থা, যার অধীনে সংখ্যালঘুদের পাশাপাশি অন্যান্য সম্প্রদায়ের ছাত্র ছাত্রীরাও পড়াশুনা করে। অবিলম্বে হাই মাদ্রাসা,আলীম,ফাযিল পরীক্ষার সময়সূচি ঘোষণার দাবি জানাচ্ছি।সেইসঙ্গে পরবর্তীতে যাতে এই ধরনের বিমাতৃসুলভ আচরণ না করা হয় সে ব্যাপারে রাজ্য সরকারকে সতর্ক করছি।”

তবে মাদ্রাসা শিক্ষা পর্ষদের সভাপতি আবু তাহের কামরুদ্দিন এই প্রতিবেদককে জানান, সরকারি নিয়ম মেনেই জুলাই ও আগস্টে হাই মাদ্রাসা, আলিম ও ফাজিল পরীক্ষা হবে। খুব দ্রুত পরীক্ষার সূচি জানানো। ৫০ নম্বরের পরীক্ষা হবে তবে প্রাপ্ত নম্বর ডবল হবে অর্থাৎ একশোর হিসেবে হবে। নিজ মাদ্রাসাতেই পরীক্ষা হবে এবং একাধিক প্রশ্নের মধ্যে ছাত্রছাত্রীরা পছন্দমতো প্রশ্নের উত্তর দিতে পারবে। আমরা ইতিমধ্যেই ছাত্রছাত্রীদের পড়াশোনার মধ্যে রাখতে এসাইনমেন্ট দিয়েছি। ঘরে বসেই পড়াশোনার সঙ্গে যুক্ত রাখতেই এই কর্মসূচি।
কিন্তু বেঙ্গল মাদ্রাসা এডুকেশন ফোরামের সভাপতি ইসরারুল মন্ডলের অভিযোগ,’
কোভিড পরিস্থিতিতে রাজ্যে মধ্যশিক্ষা পষর্দের মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষার সময়, প্রশ্নপত্রের পূর্নমান ইত্যাদি বিষয় রাজ্যে মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা করেছেন। এই বিষয় পূনার্ঙ্গ রিপোর্ট প্রকাশ করতে মধ্যশিক্ষা পর্ষদ কে নির্দেশ দিয়েছেন। কিন্তু মাদ্রাসা বোর্ডের সমন্ধে একটিও শব্দ উচ্চারণ করেনি। মাদ্রাসা বোর্ডের ছেলেমেয়েরা সংশয়ে আছে। কারন মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন ৭ দিন পরীক্ষা শেষ হবে। কিন্তু মাদ্রাসায় যে দুইটি অতিরিক্ত বিষয় আছে তার কি হবে? পরীক্ষা হবে কি আদৌ? তাছাড়া মাদ্রাসাবোর্ডের অধীনে ১০২টিসিনিয়র মাদ্রাসায় ছেলেমেয়েরা পরে ফাজিল পরীক্ষা দেয়। এটা উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার সমতুল্য। এই পরীক্ষা কিভাবে হবে কখন হবে, এই বিষয়টি সম্পূর্ন অস্পষ্ট। কারন মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণা মতো আগে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা হবে। যাতে সর্ব ভারতীয় ধারা মেনে পরবর্তী পর্যায়ে কলেজে ভর্তি হতে পারে। এখানেই প্রশ্ন উঠছে, আগে হাই মাদ্রাসা,আলিম পরীক্ষা হবে নাকি, ফাজিল পরীক্ষা হবে?
সাধারন প্রতিবছর একসাথে তিনটি পরীক্ষা হয়। এইবছর কি ব্যতিক্রম হবে?”

তবে মাদ্রাসা বোর্ডের সভাপতি এই প্রতিবেদককে জানান, হাই মাদ্রাসা, আলিম ও ফাজিল পরীক্ষা জুলাই এর শেষ ও আগস্টের প্রথমে হলেও উচ্চ মাধ্যমিকের সঙ্গেই ফল বের হবে। কলেজে ভর্তি হওয়া বলে কথা,সেটার সুযোগ আমরা করে দেবো। সুতরাং চিন্তার কোনও কারণ নেই।