দিনে ৪ ঘণ্টা পড়া গাড়ি চালকের পুত্র শুভ্রাংশু উচ্চ মাধ্যমিকে প্রথম! স্বপ্ন অর্থনীতিবিদ হওয়ার

ছবি নিজস্ব

নিজস্ব সংবাদ, টিডিএন বাংলা: আজ বুধবার প্রকাশিত হয়েছে উচ্চ মাধ্যমিকের ফলাফল। সেই ফলাফল প্রকাশিত হওয়ার পর সামনে আশে দিনে ৪ ঘণ্টা পড়ে উচ্চ মাধ্যমিকে প্রথম হওয়া গাড়ি চালকের পুত্র শুভ্রাংশুর জীবনের কাহিনী। এই বছর ৪৯৬ নম্বর পেয়ে উচ্চ মাধ্যমিকে প্রথম হয়েছেন নরেন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ মিশনের ছাত্র শুভ্রাংশু সর্দার। সংবাদ মাধ্যমকে তিনি জানিয়েছেন, তাঁর স্বপ্ন অর্থনীতিবিদ হওয়ার। জানা গিয়েছে, বজবজের বাসিন্দা শুভ্রাংশু ছোট বেলা থেকেই পড়াশোনার খুব ভালো ছিল। সে যখন পড়তে বসে তখন বইয়ের জগতে ডুবে যায়। তবে খুব বেশি সময় ধরে পড়া ছিল তার স্বভাব বিরোধী। সংবাদ মাধ্যমকে তিনি জানিয়েছেন, দিনে সর্ব সাকুল্যে তিনি পড়তেন মাত্র ৪ ঘন্টা। আর সেই পড়াতেল এল এই বিশাল সাফল্য! তবে এই বিশাল সাফল্যের জন্য শুভ্রাংশু কৃতিত্ব দিয়েছে তার স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকা ও ক্লাসের বন্ধুদের। তার কথায়, স্কুলের শিক্ষকরা তাকে খুব সাহায্য করেছে ৷ আর বন্ধুদের সাথে পড়াশুনা নিয়ে প্রতিযোগীতা ছিল বেশ ভালোই৷ যা তাকে অনুপ্রাণিত করেছে।

উচ্চ মাধ্যমিকে তার সাবজেক্ট ছিল বাংলা, ইংরাজী, ইকোনমিক্স, স্ট্যাটিসটিক্স, অঙ্ক ও কম্পিউটার সায়েন্স। ভবিষ্যতে তিনি কী হতে চান এমন প্রশ্নের উত্তরে শুভ্রাংশু জানান, আগামীতে অর্থনীতি নিয়ে পড়তে চান তিনি। ভবিষ্যতে গবেষণার কাজও করতে চান এই বিষয় নিয়ে। তার স্বপ্ন একজন বড় অর্থনীতিবিদ হওয়ার। পড়াশোনার পাশাপাশি বই পড়তে, সিনেমা দেখতে ও গান গাইতে ভালবাসেন শুভ্রাংশু। মিশনের বন্ধুদের নিয়ে ‘জোনাকি’ নামে একটি ব্যান্ডও বানিয়েছে তারা। সাংবাদিকদের অনুরোধে ক্যামেরার সামনে ‘বন্ধু তোমায় এ গান শোনাব বিকেলবেলায়’ গানটি গেয়ে শোনান তিনি। তবে গান শুনলেও সোশাল মিডিয়া থেকে দূরত্ব বজায় রেখে চলে সে।

ছেলের এই সাফল্য সম্পর্কে শুভ্রাংশুর মা শম্পা সরদার জানিয়েছেন, পুজোয় জামাকাপড়ের বদলে উপহার হিসাবে বই পছন্দ করেন তিনি। বাড়িতে টিভি দেখতে দেখতে হয় ছবি আঁকেন, নয় অঙ্ক কষেন।