উত্তর প্রদেশের ব্লক পঞ্চায়েত নির্বাচনে বড় জয় আশার আলো দেখছে বিজেপি

টিডিএন বাংলা ডেস্ক: ২০২২ সালে উত্তরপ্রদেশে বিধানসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে চলেছে। বিধানসভা নির্বাচনের আগে পঞ্চায়েত নির্বাচনে ৩০৫০টি আসনের মধ্যে বিজেপি তার জোট সঙ্গীসহ মোট ৯০০টি মত সিট পেয়েছে। এর ফলে বিধানসভা নির্বাচনের বিষয়ে আশঙ্কা তৈরি হয় বিজেপি শিবিরে। তবে গতকাল শনিবার উত্তর প্রদেশের ব্লক পঞ্চায়েত এর চেয়ারম্যান নির্বাচনে বড় জয় পেয়েছে বিজেপি। মোট ৪৭৬ টি আসনে নির্বাচন হয় এরমধ্যে ৩৪৯টি আসনে তাৎপর্যপূর্ণভাবে কোন প্রতিদ্বন্দ্বিতাই হয়নি। বিজেপি এর মধ্যে ৩৩৪টি আসনে বিজয়ী হয়। অন্যদিকে প্রধান বিরোধীদল সমাজবাদী পার্টি পেয়েছে মাত্র ৭টি আসন। এই ‘ফলে’ স্বাভাবিকভাবেই বিজেপি শিবিরে খুশির হাওয়া বইছে। রাজধানী লখনৌ এবং মুলায়ম ও অখিলেশের প্রাক্তণ নির্বাচনী কেন্দ্র কনৌজের সব কটি ব্লক পঞ্চায়েতের চেয়ারম্যান নির্বাচনে বিজেপি বিজয়ী হয়েছে। সিতাপুর জেলার ১৯টির মধ্যে ১৫টি, হরদোই জেলার১৯টি আসনের মধ্যে ১৪টি আসনে বিজেপি জিতেছে।

এছাড়া অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হলো মুজাফফরনগরের ৯টি ব্লক পঞ্চায়েত এর মধ্যে ৮টি বিজেপির দখলে। উল্লেখ্য যে, প্রশাসনিক ক্ষেত্রে ব্যাপক দুর্নীতি, মুসলিম-দলিত ও অন্যান্য সংখ্যালঘুদের উপরে অত্যাচার, স্বাস্থ্য-অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে দুর্ণীতি ও অধঃপতন জনমানুষে ব্যাপক ক্ষোভ সৃষ্টি করেছে। বিধানসভা নির্বাচনকে মাথায় রেখে এরইমধ্যে বিরোধী দলগুলি বিভিন্ন ইস্যুতে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে গণআন্দোলন গড়ে তোলার চেষ্টা করছে। এমতাবস্থায় পঞ্চায়েত নির্বাচনে ভরাডুবির পর ব্লক পঞ্চায়েতের চেয়ারম্যান পদে এই বিশাল জয় কিভাবে হল তা নিয়ে আলোচনা শুরু হয়েছে। বিরোধীরা মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগ তুলেছেন। নির্দল ও অন্যান্য দলের বিজয়ী প্রার্থীদের অর্থের লোভ ও ভয় দেখিয়ে তাদের সমর্থন আদায় করেছে যোগী অভিযোগ বিরোধীদের। যদিও বিরোধীদের সমস্ত অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছে বিজেপি। একইসঙ্গে ২০২২ এর বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির বিজয় এর ব্যাপারে তাদের দৃঢ় প্রত্যয়ের কথা জানিয়েছে।