‘বুয়া’ মায়াবতীর পর ব্রাহ্মণ ভোট পেতে ঝাপাচ্ছেন ‘ভাতিজা’ অখিলেশও

টিডিএন বাংলা ডেস্ক : উত্তরপ্রদেশের ভোট নিয়ে ‘খেলা শুরু’। সম্প্রতি ব্রাহ্মণ ভোটে থাবা বসানোর জন্য বিএসপি নেত্রী মায়াবতী সম্মেলন শুরু করেছেন। এবার সেই পথে হাঁটতে চলেছে সমাজবাদী পার্টিও। সপা’র তরফে আয়োজন করা হচ্ছে ব্রাহ্মণ সম্মেলনের।

রবিবার সপা সুপ্রিমো অখিলেশ যাদবের বাসভবনে দলের কার্যকারণী বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। উত্তরপ্রদেশের ভোটে জাত ও ধর্মের ভিত্তিতে ভোট খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। আর সেই জায়গায় ব্রাহ্মণ সমাজের ভোটে ভাগ বসাতে চাইছে সব পক্ষই। অখিলেশের বাড়িতে গিয়ে ব্রাহ্মণ সমাজের বেশ কিছু বিশিষ্ট নেতারা আলোচনা করেছেন বলে সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর। সপা নেতাকে ভগবান পরশুরামের মূর্তিও উপহার দেন তারা।

উত্তরপ্রদেশের বালিয়া জেলা দিয়েই শুরু হবে এই সম্মেলন। ব্রাহ্মণ চেতানা মঞ্চ তথা সমাজবাদী পার্টির বিধায়ক জানিয়েছেন, ‘আজকের বৈঠকে স্থির হয়েছে সমাজবাদী পার্টি উত্তরপ্রদেশ জুড়ে ব্রাহ্মণ সম্মেলন করবে।’ রাজ্যে ১৩ শতাংশ ব্রাহ্মণ ভোট রয়েছে। যেটা গতবারে সবটাই বিজেপির দিকে চলে গিয়েছিল। কিন্তু ২০১৯-এর লোকসভার পর বিগত পঞ্চায়েত নির্বাচনে সেই ভোটব্যাঙ্ক বিজেপির হাতছাড়া হয়। এরপর জিতিন প্রসাদকে কংগ্রেস থেকে বিজেপিতে নেওয়া হয়। কিন্তু তাতেও কিছু সুবিধা হবে না বলেই ধারণা বিশেষজ্ঞমহলের। তাই মায়াবতী ও অখিলেশ ব্রাহ্মণ ভোটে থাবা বসাতে মরিয়া। অন্যদিকে বিএসপি গত ২৩ জুলাই অযোধ্যা দিয়েই ব্রাহ্মণ সম্মেলন শুরু করে। উত্তরপ্রদেশে বহুজন সমাজ পার্টির বহু চর্চিত ব্রাহ্মণ সম্মেলনে বেশ কিছু বিধিনিষেধ জারি করে যোগী আদিত্যনাথ প্রশাসন। শুক্রবার রাজ্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে এই নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। এই সিদ্ধান্তের পরেই ‘ব্রাহ্মণ সম্মেলন’-এর নাম বদল করে ‘প্রবুদ্ধ বর্গ সম্মান সম্মেলন’ রাখা হয়।এর আগে ২০০৭ সালে দলিত ও ব্রাহ্মণ ভোটে সমন্বয় ঘটিয়ে সাফল্য পেয়েছিলেন মায়াবতী। রাজনৈতিক মহলের বিশ্লেষণ অনুসারে, এবারও সেই পুরোনো পথে হেঁটে সাফল্য ছুঁতে চাইছেন বিএসপি সুপ্রীমো।