উত্তর প্রদেশের নির্বাচনী শ্লোগান ও সেই ‘খেলা হবে’ : মমতার নীতিই অনুসরণ করছেন অখিলেশ যাদব ?

টিডিএন বাংলা ডেস্ক : ২০২২ সালে উত্তরপ্রদেশে বিধানসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। কিন্তু এখন থেকেই শুরু হয়ে গিয়েছে নির্বাচনের দামামা। আর এবারের উত্তর প্রদেশ বিধানসভা নির্বাচনের মূল স্লোগান হতে চলেছে বাংলার সেই ‘খেলা হবে’ স্লোগানই ।

‘বাংলা আজ যা ভাবছে ভারত আগামীতে তা ভাববে’- মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই কথা আরো একবার সত্যি হতে চলেছে। পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা ভোটের প্রচারে প্রতিটি সভায় শোনা যেত ‘খেলা হবে’ শ্লোগান। ‘খেলা হবে’ নিয়ে একাধিক গানও তৈরি করা হয়েছিল। এই স্লোগান এর সাফল্যের পর এবার উত্তরপ্রদেশেও বিজেপির বিরুদ্ধে এই শ্লোগানকে কাজে লাগাতে চাইছে সমাজবাদী পার্টি।

জানা গিয়েছে কানপুর শহরে সমাজবাদী পার্টির পক্ষ থেকে একটি হোডিং লাগানো হয়েছে। যেখানে অখিলেশ যাদব এবং স্থানীয় ২ নেতৃত্বের ছবি দিয়ে ‘খেলা হবে’ শ্লোগানটি লেখা আছে। সম্প্রতি পঞ্চায়েত নির্বাচনে উত্তর প্রদেশ পঞ্চায়েত নির্বাচনে সমাজবাদী পার্টি বিজেপির বিরুদ্ধে বড় সাফল্য পেয়েছে। এই সাফল্যের উপর ভিত্তি করে তারা ২০২২ বিধানসভা নির্বাচনে উত্তরপ্রদেশের বিজেপি শিবির কে চ্যালেঞ্জ জানাতে তৈরি হচ্ছে। আর এই নির্বাচনে অখিলেশ যাদব মমতা দিদির একলা চলো নীতিই অনুসরণ করতে চলেছে। বাংলায় বিজেপি অশালীন ভাষা ব্যবহারের ফল ভোগ করেছে। ২০২২ সালে উত্তরপ্রদেশেও সেই খেলার পুনরাবৃত্তি হবে বলে আসা করছে সমাজবাদী পার্টি।

সমাজবাদী পার্টির হোর্ডিংয়ে দেখা যাচ্ছে দলীয় প্রতীক সাইকেল আর দল নেতা অখিলেশ যাদবের সঙ্গে স্থানীয় নেতা অভিষেক গুপ্তা ও ডক্টর ইমরান ইমরান। কানপুরে দলীয় নেতা ইমরান ওই হোর্ডিংগুলি লাগানোর ব্যবস্থা করেছেন। তিনি বলেন, ‘ কানপুর জুড়ে আমরা এই হোর্ডিংগুলি লাগিয়ে দিয়েছি। কেননা খেলা তো এবার সত্যিই হবে উত্তরপ্রদেশে। যেভাবে বাংলায় অশালীন ভাষা ব্যবহার করার প্রত্যাশিত ফল পেয়েছে বিজেপি একইভাবে ২০২২ সালে উত্তর প্রদেশে একই ফলাফল হবে।’ অভিযোগ মুখ্যমন্ত্রী লক্ষ লক্ষ চাকরি দেবেন বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন কিন্তু তা পালন করা হয়নি।

অবশ্য বাংলায় বিজেপি ছিল বিরোধী আসনে আর উত্তরপ্রদেশে তারাই আছে ক্ষমতায়। তাই উত্তর প্রদেশে সমাজবাদী পার্টির পথ সহজ হবে না। এই অবস্থায় যোগী সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিষ্ঠানবিরোধীতা কে কাজে লাগাতে চাইছে তারা। এবারের নির্বাচনে বিরোধী দলের মূল অস্ত্র হল অর্থনৈতিক অবক্ষয় এবং বেকারত্ব বৃদ্ধি। এ নিয়ে ইতিমধ্যে তারা আওয়াজ তুলতে শুরু করেছে। অখিলেশ যাদব এ প্রসঙ্গে মন্তব্য করেছেন, ‘ মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ শুধু বিনিয়োগকারীদের সঙ্গে সম্মেলনে করেছেন কাজের কাজ কিছু হয়নি। এর জন্য বিজেপির স্বল্প মেয়াদী দৃষ্টিভঙ্গি দায়ী।’