বিহারে পুলিশি নির্যাতনে মৃত্যু দলিত যুবকের

টিডিএন বাংলা ডেস্ক : পুলিশ হেফাজতে শারীরিক নির্যাতনের পরে ২১ জুলাই বিহারের ভাগলপুরে একটি হাসপাতালে মারা যান ছাব্বিশ বছর বয়সী দলিত ব্যক্তি বিনোদ দাস , হসপিটালে ভর্তি হওয়ার ১২ দিন পর মারা যায় দলিত এই যুবক।

বিনোদ দাস যিনি জওহরলাল নেহেরু মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে (জেএনএমসিএইচ) এ শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। কাহালগাঁও থানা এলাকায় চুরির অভিযোগে কাহালগাঁও এবং রাজাউন পুলিশ যৌথভাবে ৭ই জুলাই তাকে আটক করে।

তার বাবা সাংবাদিকদের বলেন, পাঁচ দিনের পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে বিনোদ দাসকে নির্মমভাবে মারধর করা হয়েছিল।

“বাড়ি ফিরে আমার ছেলে রক্ত ​​বমি শুরু করে। তাকে বাঁকার অমরপুর রেফারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল এবং পরে জওহরলাল নেহেরু মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়, ” বিনোদ দাস এর বাবা জানান। রাজাউন থানার সাতজন পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন দাসের বাবা।

“ডাক্তাররা আমাকে জানান যে বিনোদ দাস অভ্যন্তরীণ আঘাত পেয়েছিল,” বাবা অভিযোগে লিখেছিলেন।

অভিযোগ অনুসারে বিনোদ দাসকে পুলিশ সদস্যরা রীতিমত হুমকি দিয়েছিলেন নির্যাতনের বিষয়ে কাউকে কিছু না বলার জন্য।

পুলিশ কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার দাবিতে মৃতের স্বজনরা বিক্ষোভ করে এবং মৃত্যুর দিনে পাঁচ ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে হাঁসদিহার কাছে ভাগলপুর-দুমকা জাতীয় সড়ক অবরোধ করে রাখে।

বাঁকা পুলিশ সুপার অরবিন্দ কুমার গুপ্ত বলেন, অভিযোগ তদন্তের জন্য একটি দল গঠন করে দেখা হবে।