দিল্লি গণহত্যা : মুসলিম ব্যক্তিকে হত্যার দায়ে সাত হিন্দু প্রতিবেশীর বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন দিল্লীর আদালতের

প্রতীকী ছবি

টিডিএন বাংলা ডেস্ক : দিল্লির একটি আদালত ফেব্রুয়ারিতে শহরে ব্যাপক গণহত্যাকাণ্ডের সময় একজন মুসলিম ব্যক্তিকে হত্যার ঘটনায় অভিযুক্ত সাত ব্যক্তির বিরুদ্ধে অভিযোগ তৈরী করেছে , ‘লাইভ ল’ এক রিপোর্টে জানিয়েছে।

নিহত শনাক্তকরণে জানা যায় ব্যক্তির নাম মনিস ,সমায়পুর বাদলী এর বাসিন্দা। গত বছর ২৫ ফেব্রুয়ারি উত্তর -পূর্ব দিল্লির চাঁদবাগ এলাকায় তাকে দাঙ্গাকারীরা মারধর করে এবং পরে গুলি করে হত্যা করে।

মনিসের হত্যাকারীরা ব্রিজপুরীর স্থানীয় বাসিন্দা হিসেবে চিহ্নিত হয়েছেন – আমান কাশ্যপ, অরুণ ওরফে মুন্না, পরদীপ রায়, আশীষ ওরফে গোলি, দেবেন্দ্র, কৃষ্ণকান্ত এবং রাহুল ভরদ্বাজ। ঘটনার মাত্র কয়েকদিন পর তাদের সবাইকে গ্রেফতার করা হয়। দিল্লি পুলিশ খুনের মামলায় তাদের বিরদ্ধে চার্জশিটও জমা করেছিল এবং খুন, দাঙ্গা, বেআইনি সমাবেশসহ অন্যান্য ধারায় মামলা দায়ের করেছিল।

গত বছরের ১ মার্চ একটি এফআইআরে নথিভুক্ত করা হয়েছিল যেখানে অজ্ঞাত ব্যক্তিদের দ্বারা হাসপাতালে ভর্তি হওয়া এই মনীশকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়েছিল।

এটি প্রসিকিউশনের মামলা ছিল যেখানে তদন্ত চলাকালীন মনোজ কানিয়াল নামে একজন প্রত্যক্ষদর্শী জিটিবি হাসপাতালে স্থাপিত সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ থেকে মনিশকে শনাক্ত করেছিলেন, যিনি আরও জনিয়েছেন যে ঘটনার সময় মনীশ তার সাথে মিষ্টি নিয়ে যাচ্ছিল।

প্রসিকিউশনের মতে, প্রত্যক্ষদর্শী আরও জানিয়েছেন যে মনীশকে লাঠি/ডান্ডা/তলোয়ার দিয়ে একটি মব আক্রমণ করে মারধর করে এবং পরে তারা পাথর ছুড়তে শুরু করেছিল, যখন তারা জানতে পারে যে সে মুসলিম সম্প্রদায়ের লোক।