আশা করি, চিনের সমর্থনে জম্মু কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা পুনরুদ্ধার হবে; বিতর্কিত মন্তব্য ফারুক আবদুল্লাহর

টিডিএন বাংলা ডেস্ক: চিনের সমর্থনে জম্মু কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা পুনরুদ্ধার হবার আশা করেন জম্মু কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আবদুল্লাহ। “ইন্ডিয়া টুডে” কে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে এমনটাই জানালেন তিনি। শুধু তাই নয়, লাদাখে লাইন অফ অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোলে চিনা আগ্রাসনের জন্য কেন্দ্রের ৩৭০ ধারা বিলোপের সিদ্ধান্তকেই দায়ী করলেন ফারুক আবদুল্লাহ।

“ইন্ডিয়া টুডে”কে দেওয়া ওই সাক্ষাৎকারে ফারুক আবদুল্লাহ বলেন, চীন কোনদিন ৩৭০ ধারার বিলোপ স্বীকার করে নেয় নি এবং আশা করি যে তাদের সমর্থনে এটা আবার প্রতিস্থাপিত হবে। ফারুক আবদুল্লাহ বলেন,”লাদাখে এলএসিতে ওরা যাকিছু করছে তার কারণ, ৩৭০ ধারা বিলোপ। যা ওরা কোনদিন মেনে নেয়নি। আমি আশা করি যে, ওদের সমর্থনে জম্মু-কাশ্মীরে আবার ৩৭০ ধারা প্রতিস্থাপন হবে।”

তিনি আরো বলেন,”আমি কোনোদিন চিনের প্রেসিডেন্টকে আমন্ত্রণ জানাইনি। এটা প্রধানমন্ত্রী মোদী করেছিলেন, যিনি শুধুমাত্র আমন্ত্রণই করেননি তার সঙ্গে দোলনায় ঝুলেও ছিলেন। এমনকি তাঁকে চেন্নাইতে নিয়ে গিয়ে তার সঙ্গে খাবারও খেয়েছিলেন তিনি।”

জম্মু কাশ্মীর নিয়ে কেন্দ্রের সিদ্ধান্ত প্রসঙ্গে ফারুক আব্দুল্লাহ আরো বলেন, ২০১৯ সালের ৫ আগস্ট সরকার যা করেছিল তা কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। তিনি অভিযোগে আরো বলেন তাকে সংসদের জম্মু-কাশ্মীরের সমস্যা নিয়ে কথা পর্যন্ত বলতে দেওয়া হয়নি।

প্রসঙ্গত, সংবিধানের ৩৭০ ধারা এবং ৩৫ এ ধারারভারতের সংবিধানের অধীনে জম্মু ও কাশ্মীরকে বিশেষ মর্যাদা দেওয়া হয়েছিল, এটি অন্যান্য আইনী পার্থক্যের মধ্যে একটি পৃথক সংবিধান এবং পৃথক দণ্ডবিধির অনুমতি দেয়। কিন্তু গত বছর ৫ আগস্ট এই দুটি ধারা বিলোপের মাধ্যমে জম্মু কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা খর্ব করা হয়। জম্মু এবং কাশ্মীর কে দুটি আলাদা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে ভাগ করে দেওয়া হয় যথাক্রমে জম্মু কাশ্মীর এবং লাদাখ। এরপরে রাতারাতি গৃহবন্দী করা হয়, ফারুক আব্দুল্লাহ, ওমর আব্দুল্লাহ, মেহবুবা মুফতি সহ জম্মু-কাশ্মীরের সমস্ত প্রথম সারির রাজনৈতিক নেতাদের। এদের মধ্যে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আব্দুল্লাহ ও ওমর আব্দুল্লাহ মুক্তি পেয়ে গেলেও এখনো পর্যন্ত বন্দিদশাতেই রয়েছেন পিডিপি সভানেত্রী তথা জম্মু-কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি।