সংবাদমাধ্যমের খবর সত্যি হলে, তা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ, পেগাসাসকাণ্ডে মত সুপ্রিমকোর্টের

টিডিএন বাংলা ডেস্ক: সংসদের চলতি বাদল অধিবেশনে সবচেয়ে বেশি আলোচিত বিষয় পেগাসাস। বিরোধীদের অভিযোগ, পেগাসাস আলোচনায় সরকার অনুমতি দিচ্ছে না। বারবার তাদের বাধার মুখে পড়তে হচ্ছে। এদিকে পেগাসাস কাণ্ড নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে জনস্বার্থ মামলার শুনানি ছিল বৃহস্পতিবার। নিরপেক্ষ তদন্তের দাবিতে দেশের সর্বোচ্চ ন্যায়ালয়ে ৯ টি জনস্বার্থ মামলা দায়ের করা হয়েছিল। বৃহস্পতিবার এই মামলাগুলির শুনানি হয়। মামলাগুলি শোনেন প্রধান বিচারপতি এনভি রমানা এবং বিচারপতি সূর্য কান্তের ডিভিশন বেঞ্চ। তবে আদালত এদিন এ বিষয়ে চূড়ান্ত কোনও সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেনি। আগামী মঙ্গলবার এই মামলার পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করা হয়েছে।

সুপ্রিম কোর্ট এই মামলার প্রেক্ষিতে জানিয়েছে, পেগাসাস কাণ্ড নিয়ে সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত রিপোর্ট যদি সত্যি হয়, তাহলে বিষয়টি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। পাশাপাশি প্রধান বিচারপতি এনভি রামানা এ-ও বলেছেন, কিছু অভিযোগে বলা হয়েছে তাঁদের ফোন ট্যাপ করা হয়েছিল। তাহলে সেই সকল অভিযোগকারী তথ্যপ্রযুক্তি আইন অনুযায়ী মামলা দায়ের করেননি কেন? এমন প্রশ্ন তুলেছেন প্রধান বিচারপতি। তিনি আরও বলেছেন, ২০১৯ সালে এই রিপোর্ট প্রথম প্রকাশ্যে আসে, তাহলে এতদিন কেন অভিযোগ করা হয়নি? তবে, এ বিষয়ে এখনই তদন্তের নির্দেশ দেওয়ার মতো প্রমাণ হাতে নেই বলেও মন্তব্য করেছেন প্রধান বিচারপতি। পাশাপাশি সুপ্রিম কোর্ট আরও জানিয়েছে, বিষয়টি পরিষ্কার হওয়া প্রয়োজন। ফোনে আড়িপাতা নিয়ে বিরোধীরা যে অভিযোগ করছেন, কেন্দ্রকে তা শুনতে হবে।
পেগাসাস মামলা নিয়ে ইতিমধ্যেই সংসদের বাদল অধিবেশনে তুলকালাম কাণ্ড চলছে বিরোধী শিবিরে। বিরোধীদের অভিযোগ, তাঁদের কথা শোনা হচ্ছে না। এমনকী পেগাসাস বললেই নাকি বন্ধ হয়ে যাচ্ছে সাংসদদের মাইক্রোফোন। এদিন সুপ্রিম কোর্টের এই নির্দেশে পেগাসাস নিয়ে বিরোধীদের বক্তব্য এবার কেন্দ্র শুনবে বলে মনে করছেন ওয়াকিবহাল মহল।