নতুন গো-সুরক্ষা বিল পেশ অসাম বিধানসভায়

image courtesy : internet

টিডিএন বাংলা ডেস্ক: সোমবার অসম বিধানসভা অধিবেশনে অসমের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা ‘গো-সুরক্ষা আইন’ নামে একটি বিল পেশ করেন। এই বিলটিতে প্রস্তাব করা হয়েছে মন্দির সংলগ্ন পাঁচ কিলোমিটারের মধ্যে গরুর মাংস বিক্রি করা নিষিদ্ধ করা হোক। একইসঙ্গে বিলটিতে হিন্দু, জৈন বা অন্য যে কোন সম্প্রদায়ের এলাকাতে যারা গোমাংস ভক্ষণ করে না সেখানেও গরুর মাংস বিক্রি বন্ধ করার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। ইতিপূর্বে আসামে গো-হত্যার আইন করা হয় সেই আইন আজও বলবত আছে। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত শর্মা বলেন, ১৯৫০ সালের গরু সুরক্ষা আইন যথোপযুক্ত নয়। এ প্রসঙ্গে আসাম বিধানসভার বিরোধীদলীয় নেতা দেবব্রত মহাশয় একটি সংবাদ মাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বলেন, ” এই আইনে অনেক জটিলতা আছে। এখানে মন্দিরের পাঁচ কিলোমিটারের মধ্যে গোহত্যা ও গরুর মাংস বিক্রয় নিষিদ্ধের কথা বলা হয়েছে। কিন্তু মন্দিরের ৫ কিলোমিটার কিভাবে নির্ধারণ করা হবে তা নিয়ে জটিলতা তৈরি হবে। তাছাড়া যে কোন জায়গাতে পাথর রেখে বা যে কোন গাছকে পুজা করা হতে পারে। সে ক্ষেত্রে কোথায় কোথায় এই নিষেধাজ্ঞা জারি করা হবে তা নিয়ে জটিলতা তৈরি হবে। তিনি মনে করেন, এই আইনের ফলে সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা বৃদ্ধি পাবে। এর প্রয়োগ অত্যন্ত জটিল হবে। এই বিলের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেছেন অল ইন্ডিয়া ইউনাইটেড ফ্রন্টের বিধায়ক আমিনুল ইসলাম। তিনি বলেন, এই বিলটি একপেশে সাম্প্রদায়িক এর মাধ্যমে মুসলিমদের অনুভূতিতে আঘাত করা হয়েছে। তিনি এই বিন সংশোধনের দাবি তুলেছেন। তিনি মনে করেন, এর ফলে আসামে সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা বৃদ্ধি পাবে। উল্লেখ্য যে, অসমে আগে থেকেই গো সুরক্ষা আইন আছে। সেখানে ১৪ বছরের উপরের গরুর মাংস বিক্রি করায় নিষেধাজ্ঞা ছিল না। এছাড়াও ভারতের বেশকিছু রাজ্যে গো সুরক্ষা আইন আছে। তবে কোন কোন স্থানে গোমাংস বিক্রি করা যাবে না এ সংক্রান্ত নির্দেশিকা সম্পন্ন আইন কোথাও নেই।