ধর্মীয় পরিচয়ের কারণে উচ্চ মাধ্যমিকে প্রথম রুমানা সুলতানাকে তাচ্ছিলের অভিযোগ শিক্ষা সংসদের বিরুদ্ধে

টিডিএন বাংলা ডেস্ক: ২২ জুলাই বৃহস্পতিবার উচ্চ মাধ্যমিকের ফল প্রকাশিত হয়েছে। ফল প্রকাশিত হওয়ার হতেই দেখা যায় পশ্চিমবঙ্গের মধ্যে প্রথম হয়েছেন মুর্শিদাবাদের মুসলিম পরিবারের মেয়ে রুমানা সুলতানা। একজন মুসলিম পরিবারের ছাত্রী উচ্চমাধ্যমিকে প্রথম স্থান অধিকার করায় খুশির হাওয়া মুর্শিদাবাদে। বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে তার সাক্ষাৎকার দেখানো হয়েছে। সবাই যখন তাকে নিয়ে উচ্ছ্বাসিত তখন উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদের বিরুদ্ধে তার মুসলিম পরিচয় হওয়ার কারণে তাকে তাচ্ছিল্য করার ও অবজ্ঞা করার অভিযোগ উঠল। সাংবাদিক সম্মেলনে উচ্চ মাধ্যমিকের ফলাফল প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সাংসদের সভানেত্রী মহুয়া দাস বলেন, “উচ্চমাধ্যমিকে এবছর প্রথম হয়েছেন একজন মুসলিম মেয়ে”। সাংবাদিকরা উচ্চ মাধ্যমিকে প্রথম শিক্ষার্থীর নাম জানতে চাইলে তিনি বলেন, “ওয়েবসাইটে আছে দেখে নিন”। ইতিপূর্বেও বহুবার মুসলিম পরিবারের শিক্ষার্থীরা রাজ্যের বিভিন্ন পরীক্ষায় প্রথম স্থান অধিকার করেছেন। ফলে এই ফলাফলে অবাক হওয়ার কিছু নেই। স্বাভাবিকভাবেই বিভিন্ন মহল থেকে শিক্ষা সংসদের এই মনোভাবকে সাম্প্রদায়িক ও বিদ্বেষী মনোভাবের পরিচয় বলে প্রতিবাদ জানিয়েছে। শিক্ষা সংসদের এই মনোভাবের বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীররঞ্জন চৌধুরীও। সোশ্যাল মিডিয়াতে একটি পোস্টে তিনি বলেন, “মুসলিম মহিলা প্রথম হয়েছে, যারা বার বার বলছে, তাদের এত অবাক কেন হতে হচ্ছে! ছাত্রীর নাম দেখে সে কোন ধর্মের বোঝানোর দায়িত্ব না-নিলে খুশি হব।” এ প্রসঙ্গে এসআইও এর রাজ‍্য ডিপার্টমেন্টাল সেক্রেটারী ইমরান হোসাইন বলেন, “প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে একজন শিক্ষার্থী হিসাবে দেখা উচিত। তার ধর্মীয় পরিচয় কখনোই বড়ো করে দেখা উচিত নয় বলে মনে করে এসআইও।”